ঢাকা, মঙ্গলবার 9 January 2018, ২৬ পৌষ ১৪২৪, ২১ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানের কাছেও হারল যুব দল

স্পোর্টস রিপোর্টার : ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় আফগানিস্তানের বিপক্ষেও প্রস্তুতি ম্যাচে হারল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। গতকাল নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আফগান যুবাদের সঙ্গে খেলতে নেমে মিডল অর্ডার ও লেট অর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতায় ৫৬ রানের ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ যুব দল। এর আগে ওটাগো একাদশের বিপক্ষে দুটি ম্যাচে হেরেছিল আফিফ-সাইফরা। গতকাল আগে ব্যাট করতে নেমে ২০৬ রানে অলআউট হয় আফগানিস্তান যুবদল। ফলে জয়ের জন্য ২০৭ রানের টার্গেট পায় বাংলাদেশ যুবদল। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে হারতে হয় বাংলাদেশকে। গতকাল লেগ স্পিনার কায়েস আহমেদের কাছেই অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ২৬ রান খরচায় বাংলাদেশের তিন গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যানকে সাজঘওে ফেরান এই স্পিনার। আফগানিস্তানের দেয়া ২০৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে বাংলাদেশের যুবারা ৪১.৪ ওভারে গুটিয়ে যায় ১৫০ রানে। খেলতে নেমে প্রথম ২০ ওভার দুই উইকেটে ৯৬ রান তুলে শক্ত অবস্থানে ছিল সাইফরা। কিন্তু পিনাক ও সাইফের বিদায়ের পরই ভেঙে পড়ে জুনিয়র টাইগারদের ইনিংস। ৫৬ বল থেকে ৫৪ করে আউট হয়েছেন পিনাক, যেখানে ছিল ৮টি চারের মার। এছাড়া অধিনায়ক সাইফ হাসান ৭৪ বলে ৪৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। এদের দুইজনকে হারিয়ে বাকি ব্যাটসম্যানরা ছিলেন আসা যাওয়ার মিছিলে। শেষ পর্যন্ত ১৫০ রানে আউট হলে যুবারা ৫৬ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে। আফগান বোলারদের মধ্যে পেসার নাভেন-উল-হক ও লেগ স্পিনার কায়েস আহমেদ প্রত্যেকে তিনটি করে উইকেট নেন। ওটাগোর বিপক্ষে প্রথম দুই প্রস্তুতি ম্যাচে রান পেয়েছিলেন সাইফ হাসান, আমিনুল ইসলাম, আফিফ হোসেন ও তৌহিদ হৃদয়। যাদের মধ্যে কেবলমাত্র সাইফ হাসানের দুটি হাফসেঞ্চুরি এবং তৌহিদের একটি হাফসেঞ্চুরি ছিল। আফগানিস্তানের বিপক্ষে পিনাক ঘোষ ৫৪ রান করলেও সাইফ খেলেছেন ৪৩ রানের ইনিংস। বাকি স্কোরগুলো দুই অঙ্কও পৌঁছাতে পারেনি। বাকি আট ব্যাটসম্যানদের মধ্যে আমিনুল ইসলামের স্কোর ছিল ৯। সব মিলিয়ে মূল মঞ্চে নামার আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সাইফদের হারটা আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরাবে তাতে সন্দেহ নেই! পরে ব্যাটিংটা খারাপ হলেও বোলিংটা ভালোই ছিল যুব দলের। দুই পেসার হাসান মাহমুদ ও রবিউল হকের বোলিং তোপে পড়ে আফগান যুবারা ২০৬ রানে অলআউট হয়। আফগানিস্তানের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান আজমতউল্লাহ ওমারজিয়ার ৮১ রানের সুবাদে ২০৬ রানের সংগ্রহ পায় তারা। যদিও তার আগেই আফগানদের অলআউট করার সুযোগ ছিল বাংলাদেশের সামনে। একপর্যায়ে ৪৩ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৩ রান ছিল আফগানদেও স্কোর। সেখান থেকে নবম উইকেটে মাত্র ২৯ বলে ৫৫ রান তোলে স্কোরবোর্ড সমৃদ্ধ করে তারা। বাংলাদেশি যুবাদের পক্ষে পেসার হাসান মাহমুদ ৪৬ রান খরচায় তুলে নেন চারটি উইকেট। এছাড়া রবিউল হক তিনটি, বাঁহাতি স্পিনার টিপু সুলতান দুটি এবং পেসার কাজী অনিক একটি করে উইকেট নিয়েছেন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ