ঢাকা, মঙ্গলবার 9 January 2018, ২৬ পৌষ ১৪২৪, ২১ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নাটোরে হাতুড়ি পেটায় কলেজ অধ্যক্ষ গুরুতর আহত

নাটোর সংবাদদাতা: নাটোরের বাগাতিপাড়ায় চাঁদপুর বিএম কলেজে শনিবার বহিরাগতদের হাতুড়ি পেটায় গুরুতর আহত হয়েছেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান (৫৫)। আহত অধ্যক্ষকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে পরিবেশ শান্ত রাখতে কলেজে দিন ব্যাপী পুলিশ মোতায়েন ছিল। সন্ধ্যায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কলেজে প্রবেশ করেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যে সাত-আট জন বহিরাগত যুবক কলেজে প্রবেশ করে এবং তাদের হাতে থাকা হাতুড়ি দিয়ে অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানকে বেধড়ক মারধর করে ফেলে রেখে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে। গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানকে স্থানীয়রা বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে তাৎক্ষণিক রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।    স্থানীয়রা জানায়, ওই কলেজের অধ্যক্ষ মকবুল হোসেনের নিয়োগ জটিলতা নিয়ে গত বছরের ১৯ জানুয়ারী গভর্নিং বডির সভাপতি তৎকালীন ইউএনও অধ্যক্ষের পদ থেকে তাঁকে অব্যহতি প্রদান করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে লুৎফর রহমানকে দায়িত্ব দেন। তখন থেকেই দুপক্ষের মধ্যে বিবাদ চলছে।
সবশেষে ওই কলেজের তিনটি কক্ষে তালা দেওয়াকে কেন্দ্র করে গত ২ জানুয়ারী উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ বিষয়ে মকবুল হোসেন বলেন, অধ্যক্ষ পদ থেকে তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে এমন কোন চিঠি তিনি এখনো হাতে পাননি। তবে নিরাপত্তার অভাবে তিনি দীর্ঘদিন থেকে কলেজে প্রবেশ করতে পারেননা। তাছাড়াও বর্তমান অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানকে হাতুড়ি পেটা সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে বাগাতিপাড়া থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কলেজের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে হাতুড়ি পেটার ঘটনা ঘটতে পারে। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে সেখানে দিনব্যাপী পুলিশ মোতায়েন ছিল। তিনি কোন লিখিত অভিযোগ পাননি জানিয়ে বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। চাঁদপুর বিএম কলেজে গভর্ণিং বডির সভাপতি বাগাতিপাড়া উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার মেরিনা সুলতানা বলেন, খবর পেয়ে অধ্যক্ষ লুৎফর রহমানকে দেখতে তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন।
এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ