ঢাকা, মঙ্গলবার 9 January 2018, ২৬ পৌষ ১৪২৪, ২১ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পোল্ট্রি শিল্পের উন্নয়নে স্মারকলিপি প্রদান

খুলনা অফিস: পোল্ট্রি ও ডেইরী শিল্পের উন্নয়নে ১২ দফা দাবী সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ পোল্ট্রি খামার রক্ষা জাতীয় পরিষদ, খুলনা বিভাগীয় শাখা কমিটি ও খুলনা পোল্ট্রি ফিস ফিড শিল্প মালিক সমিতির যৌথ উদ্যোগে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় জেলা প্রশাসক, খুলনা মো. আমিন-উল ইসলামের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী বরাবরে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।
এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন-পোল্ট্রি সমিতির বিভাগীয় সভাপতি মাওলানা ইব্রাহিম ফয়জুল্লাহ, মহাসচিব ও প্রাণিপ্রেমী এসএম সোহরাব হোসেন, সাবেক সভাপতি মো. সালাহ্উদ্দিন, মো. আল-মামুন, সহ-সভাপতি সৈয়দ মো. বেলাল হোসেন, শাহ জাফর মো. মেহেতা, শেখ রেজানুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ মো. মামুনুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক তপন পাল, সঞ্চয় ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক তালুদার মো. হেলালুর জামান, শেখ আব্দুল হালিম, শামসুর রহমান বাবুল, জসীম ফরাজী প্রমুখ।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, নানান সংকট, ষড়যন্ত্র, যুগোপযোগী নীতিমালার অভাব, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাদের কাক্সিক্ষত সুযোগ-সুবিধা, চিন্তাধারার অভাব ও চাহিদার আলোকে উৎপাদন ও বিপণন ব্যবস্থা না থাকায় ক্রমেই এ খাতগুলো ধ্বংসের দারপ্রাপ্তে এসে দাঁড়িয়াছে। খামারী ও ব্যবসায়ীদের ক্রমাগত লোকসানে তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে, তাদের দুঃখ, বেদনা ও হাহাকারে কেউ এগিয়ে আসে না।
খামারীদের বোবা কান্নার মধ্যেও দেশে আমিষের জোগান দিয়ে কী অপরাধ করেছে ? দেশের চাহিদার অতিরিক্ত ডিম ও মুরগির মাংস উৎপাদন হওয়ায় রফতানির ব্যবস্থা না থাকায় বাজারে মূল্য খুবই কম। সরকারের কোন প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসেনি এই সমস্যার সমাধানে।
বহুজাতিক কোম্পানীকে পোল্ট্রি-ডেয়ারী চাষ থেকে বিতরণে অংশগ্রহণের অনুমতি বাতিল, কৃষির মত পোল্ট্রি ও ডেয়ারী শিল্পে সহজ শর্তে ই এফ ফান্ডের ঋণের ব্যবস্থা, বীমা প্রথা চালু ও খাদ্য, বাচ্চা ও ওষুধে সরকার ঘোষিত ভর্তুকীসহ বিদ্যুৎ, কর-খাজনা ও ট্যাক্সের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিতে চলতি অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে সুর্নির্দিষ্টভাবে পৃথক পৃথক বরাদ্দ ঘোষণার দাবী করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ