ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 January 2018, ২৮ পৌষ ১৪২৪, ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তাড়াশে সবজি চাষ করে খোকন স্বাবলম্বী

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ): তাড়াশে সবজি ক্ষেতে খোকনের সফলতা -সংগ্রাম

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) থেকে শাহজাহান: চাকরির আশায় বসে না থেকে বেকারিত্বের অভিশাপ হতে মুক্তিতে দুঃখ মোচনের জন্য পরিশ্রমকে কাজে লাগিয়ে তাড়াশের হত দরিদ্র খোকন এখন সচছলতায় ফিরে এসেছেন। সংসারে অভাব ছিল যার নিত্যসঙ্গী। মাত্র দেড় বিঘা জমিতে সবজি চাষ করে দারিদ্র্য জয় করেছেন সিরাজগঞ্জের তাড়াশের খোকন আলী নামে এক প্রান্তিক কৃষক। তিনি উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের প্রত্যন্ত হামিদপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে। নিজের ইচ্ছাশক্তি আর কঠোর পরিশ্রমকে কাজে লাগিয়ে তিনি এখন স্বাবলম্বী।
সরেজমিনে হামিদপুর গ্রামের বিস্তীর্ণ মাঠের মধ্যে গিয়ে দেখা যায়, সবজি ক্ষেত দেখভাল ও পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন খোকন আলী। সঙ্গে স্ত্রী খুশি পারভিন, দু’জন কৃষি শ্রমিক এবং প্রতিবেশীরা রয়েছেন। খোকন আলী এবং কৃষি শ্রমিক বিভিন্ন সবজি গাছে পানি দিচ্ছেন।
স্ত্রী ও প্রতিবেশীরা সবজি তুলে এক জায়গায় জড়ো করছেন স্থানীয় হাট-বাজারে পাইকারী ও খুচরা বিক্রির জন্য। জমিতে বাঁধাকপি, ফুলকপি, বেগুন, আলু, শসা, লাউ, মিষ্টি লাউ, শিম, বরবটি, টমেটোসহ নানা শীতকালীন সবজি চাষ করে থাকেন তিনি। এর মধ্যে কিছু সবজি বেচা-বিক্রি হয়ে গেছে। এখনও কয়েক ধরনের সবজি ক্ষেতে রয়ে গেছে।
এক সময় খোকন আলী জানান, দেড় বিঘা ফসলি জমি আর মাথা গোঁজার ছোট্ট একটা বাড়ি ছাড়া কিছুই ছিল না তার। বছর দুয়েক আগেও জমিতে ইরি-বোরো ধানের আবাদ করতেন তিনি। একই সঙ্গে অন্যের জমিতেও দিনমজুরের কাজ করতেন। তবুও সংসারে অভাব-অনটন লেগেই থাকত সবসময়।  মূলত সঠিক সিদ্ধান্ত আর কঠোর পরিশ্রমকে কাজে লাগিয়ে তিনি এখন লাখপতি। মাটির ঘরের জায়গায় ইটের পাকা বাড়ি হয়েছে তার।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. সাইফুল ইসলাম জানান, খোকন আলী উপজেলা পর্যায়ে কৃষি বিভাগ হতে এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সফল সবজি চাষি হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ