ঢাকা, শুক্রবার 12 January 2018, ২৯ পৌষ ১৪২৪, ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নবাবগঞ্জে ৪টি ইটভাটায় কাঠ পোড়ার অপরাধে জরিমানা

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদদাতা: দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় ইট প্রস্তুতকরণ ও পোড়ানো আইন অমান্য করে তিন ফসলি কৃষি জমিতে লাইসেন্স ছাড়াই স্থাপন করেছেন ইটভাটা। ওই ভাটাগুলোতে প্রকাশ্যে কয়লার পরিবর্তে জালানি হিসেবে পুড়ছে দেশীয় প্রজাতির কাঠ। এর কারনে বৃক্ষ নিধন হচ্ছে। দেখার ও বলার কেউ নেই। সম্প্রতি নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার  ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মশিউর রহমান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে উপজেলার ৩নং গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের বন এলাকায় দুইটি ইটভাটায় ২ লাখ ২৫ হাজার টাকা ও ২নং বিনোদনগর ইউনিয়নের রামপুর বাজারে এক ভাটায় ১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন। এদিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে একটি ভাটায় ৬০ হাজার ও গত রোববার উপজেলা নির্বাহী অফিসার অতিরিক্ত দায়িত্ব ও সহকারি কমিশনার মো. আরাফাত হোসেন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৭ নং দাউদপুর ইউনিয়নের লাউগাড়ি এলাকায় একটি ইটভাটায় কাঠ পোড়ার অপরাধে ১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন বলে জানা গেছে। উপজেলা সদর বিট কর্মকর্তা নিশিকান্ত মালাকার জানান, ভাটাগুলোতে কয়লার পরিবর্তে কাঠ পোাড়ানো হচ্ছিল। নবাবগঞ্জ উপজেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. হাফিজুর রহমান অভিযোগ করে জানান, যারা লাইসেন্স ছাড়াই অবৈধ ইটভাটা স্থাপন করে দেশীয় প্রজাতির বৃক্ষ নিধন করছে তিনি ওই সমস্ত ইটভাটা গুলোকে উচ্ছেদ করার জন্য দাবি জানান। ইটভাটা মালিক আনোয়ার হোসেন ও আজিজুল হক জানান, কয়লার দাম বৃদ্ধি হলেও তারা সরকারি নিয়ম অনুযায়ী কাঠ পুড়ছেন না। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মশিউর রহমান জানান, অবৈধ ইটভাটা মালিকেরা যত বড়ই প্রভাবশালী হোক না কেন তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ