ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 July 2018, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইরানের সাথে পরমাণু চুক্তি বহাল রাখার আহবান ইইউ'র

ইরানের পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে বর্তমান চুক্তির চেয়ে ভালো উপায় থাকলে তা নিয়ে আসতে ওয়াশিংটনের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বোরিস জনসন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি থেকে সরে না আসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহবান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ওই চুক্তিতে ইরানের পরমাণু কর্মসূচী সীমিত রাখার কথা বলা হয়েছে।

ইরান, ফ্রান্স, জার্মানি আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বোরিস জনসন বলেছেন, এই চুক্তিই ইরানকে পরমাণু অস্ত্র তৈরি থেকে বিরত রাখতে পারে।

তিনি বলছেন, ''আমি মনে করিনা কেউ এর চেয়ে ভালো কোন উপায় নিতে আসতে পারবে। যারা এটির বিরোধিতা করছে, তারা আরো ভালো সমাধান নিয়ে আসুক, কারণ আমরা এরকম কিছু কখনো দেখতে পাইনি।''

ইরান পরমাণু চুক্তি থেকে সরে আসতে বা সংশোধন করতে চাইছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত বৃহস্পতিবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোগেরিনি

উল্লেখ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন বরাবরই ইরানের সঙ্গে সম্পাদিত পরমাণু চুক্তি মেনে চলার উপর গুরুত্ব দিয়ে আসলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ চুক্তির বিরোধিতা করছেন।সর্বশেষ

মার্কিন সরকার যখন এ সমঝোতা থেকে বের হয়ে যাওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে তখন ইউরোপীয় ইউনিয়ন সম্মিলিতভাবে সমঝোতার প্রতি সমর্থন ঘোষণা করলো।

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত বৃহস্পতিবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেডেরিকা মোগেরিনি।

বৈঠক শেষে মোগেরিনি জানান, "আজকের বৈঠকে সব পক্ষ থেকে পরমাণু সমঝোতা পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।" তিনি বলেন, পরমাণু সমঝোতা ঠিক মতোই কাজ করছে এবং ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর নজরদারির যে লক্ষ্য নিয়ে সমঝোতা সই হয়েছিল সে লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হয় নি। এসময় তিনি আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ'র নয়টি রিপোর্টের কথা তুলে ধরেন। আইএইএ'র এসব রিপোর্টে নিশ্চিত করা হয়েছে যে, ইরান পরমাণু সমঝোতা মেনে চলছে।

মোগেরিনি যদিও ইরানের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ও মধ্যপ্রাচ্যে সৃষ্ট উত্তেজনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তবে তিনি পরিষ্কার করে বলেছেন, এসব ইস্যুর সঙ্গে পরমাণু সমঝোতার সম্পর্ক নেই।

ওই চুক্তিটি থেকে সরে আসতে বা সংশোধন করতে চাইছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি মনে করেন, ওই চুক্তিটি যুক্তরাষ্ট্রের জন্য একতরফা ভাবে বাজে । তিনি ইরানের উপর পুনরায় অবরোধ আরোপেরও হুমকি দিয়েছেন।

তবে ইইউ পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফ্রেডেরিকা মোঘেরিনি বলছেন, এই চুক্তিটি কাজ করছে, ইরানের পরমাণু কর্মসূচীর উপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ভালোভাবে নজরদারি করতে পারছে। এরকম একটি চুক্তি রক্ষা করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের এক থাকা দরকার, যা বিশ্বকে নিরাপদ করতে পারে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত মঙ্গলবারই জানিয়ে দিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি চুক্তিটি থেকে সরে যায়, তাহলে তারাও এর 'উপযুক্ত আর ওজনদার' জবাব দিতে প্রস্তুত আছে।ছবি-এএফপি

এদিকে, ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত মঙ্গলবারই জানিয়ে দিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি চুক্তিটি থেকে সরে যায়, তাহলে তারাও এর 'উপযুক্ত আর ওজনদার' জবাব দিতে প্রস্তুত আছে।

যদিও ইরান বরাবরই দাবী করে আসছে যে, শান্তিপূর্ণ উদ্দেশেই তারা তাদের পারমানবিক কর্মসূচী পরিচালনা করছে। সূত্র: বিবিসি, পার্স টিভি

ডি.স/আ.হু

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ