ঢাকা, মঙ্গলবার 22 January 2019, ৯ মাঘ ১৪২৫, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

‘নিহত তিনজন জঙ্গি, জেএমবির সদস্য’

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেছেন, ‘আমাদের অভিযানে যে তিনজন জঙ্গি মারা গেছে, তারা সবাই গোলাগুলিতে মারা গেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘তিনজনই জেএমবির (জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ) সদস্য ছিল।’

আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ায় ‘রুবি ভিলা’ নামে বাড়িতে অভিযানের বিষয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান মুফতি মাহমুদ খান।

তবে  এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে চাননি র্যাব মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ।

মুফতি মাহমুদ আরো বলেন, ‘জঙ্গিরা নতুন পন্থা অবলম্বন করেছিল। আমাদের অভিযানিক দল ভেতরে ঢুকেই দেখে যে জঙ্গিরা গ্যাস বার্নার অন করে ওটার ওপরে একটি গ্রেনেড রেখে দিয়েছিল। যাতে টেমপারেচার ডেটেনিশন হয়ে কিন্তু একটা ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারতো।’

গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টা থেকে পশ্চিম নাখালপাড়ায় ‘রুবি ভিলা’ নামে বাড়িটি ঘিরে অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শুক্রবার সকালে র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, ভবনে তিনজনের লাশ আছে।

বিকেলে গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, নিহত তিনজনই জঙ্গি এবং জেএমবির সদস্য। ভবনের অন্য বাসিন্দারা নিরাপদে আছে।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, ‘জাহিদ নামের জঙ্গির পরিচয়পত্র আমরা পেয়েছি। তবে তার নিজের ছবি দিয়ে দুটি আইডি পাওয়া গেছে। হতে পারে দুটোই ভুয়া। বাড়ির কেয়ারটেকার তাদের কাছে তাদের বিস্তারিত তথ্য চাইলেও তারা দেয়নি।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মুফতি মাহমুদ বলেন, ‘আমাদের অভিযানে যে তিনজন জঙ্গি মারা গেছে, তারা সবাই গোলাগুলিতে মারা গেছে। জাহিদ নামের জঙ্গি ভোরে বের হতো আর দুপুর ২টায় বাসায় আসত। জাহিদ একটা বেসরকারি কোম্পানিতে জব করত বলে আমরা রুবেলের (মেস ম্যানেজার) কাছ থেকে জানতে পেরেছি। কিন্তু বাকি যে দুজন আছে, তাদের ফ্ল্যাটের বাইরে কেউ কখনো দেখেনি।’

মুফতি মাহমুদ আরো বলেন, ‘আর কিছু বলা এখনই সম্ভব হচ্ছে না। আমরা সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করে যেটা জানতে পেরেছি বা যে তথ্য পেয়েছি, তা আরো বিশ্লেষণ করে আপনাদের পরে জানানো হবে।’

-সূত্র: সংবাদ মাধ্যম সমূহ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ