ঢাকা, রোববার 14 January 2018, ১ মাঘ ১৪২৪, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দিল্লী ফিরে গেলেন মাওলানা সাদ

স্টাফ রিপোর্টার : বিরোধিতার মুখে টঙ্গীতে ইজতেমায় যোগ না দেয়ার সিদ্ধান্তের একদিন পর নিজ দেশ ভারতে ফেরত গেলেন তাবলিগ জামাতের মুরুব্বি মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভি। গতকাল শনিবার দুপুরে তিনি শাহজালাল বিমানবন্দর হয়ে ঢাকা ছাড়েন।
বিমানবন্দর সূত্র জানিয়েছে, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে জেট এয়ারওয়েজের একটি উড়োজাহাজে করে তিনি ভারত রওনা দেন। টঙ্গীতে ইজতেমায় যোগ দেয়ার উদ্দেশ্যে গত বুধবার দুপুরে তিনি ঢাকায় আসেন। সেদিন তার আগমনের বিরোধিতা করে বিমানবন্দর ও আশপাশের এলাকায় বিক্ষোভ করেন সাদ বিরোধী তাবলিগকর্মী ও কওমি আলেমরা। এই কয়েকদিন মাওলানা সাদ রাজধানীর কাকরাইল মসজিদে অবস্থান করেছেন। শুক্রবার তিনি এই মসজিদে জুমার নামাজে বয়ান করেন। বিরোধিতার মুখে ইজতেমায় অংশ না নিয়েই ফিরে গেলেন তিনি।
তাকে নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়া কর্মীরা তাকে ইজতেমায় অংশ নেয়া থেকে বিরত রাখতে বিক্ষোভ করার পর তাতে অনড় থাকলে পরদিন ১১ জানুয়ারি বিবদমান দুই পক্ষকে নিয়ে বৈঠকে বসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
দুই ঘণ্টার বৈঠক শেষে সিদ্ধান্ত হয় মাওলানা সাদ ইজতেমায় অংশ নেয়া থেকে বিরত থাকবেন এবং ‘সুবিধাজনক সময়ে’ তিনি বাংলাদেশ ছেড়ে যাবেন। এরপর শুক্রবার ইজতেমা শুরু হলেও কাকরাইলে মসজিদেই কাটান মাওলানা সাদ। সেখান থেকেই ফিরে যান তিনি।
শুক্রবার বাংলাদেশে তাবলিগ জামাতের মারকাজ কাকরাইল মসজিদে জুমার নামাজের আগে বয়ান ও নামাজ শেষে দোয়া পরিচালনা করেন তিনি। এ সময় তিনি বলেন, কোনও সময় যদি আামাদের ওলামায় কেরাম কোনও কারণে ভুল ধরেন, আমরা মনে করবো, ওনারা আমাদের ওপর এহসান করেছেন, ওনারা আমাদের মোহসেন। ওলামায় কেরাম যে কথা বলবেন, তাতে আমাদের সংশোধন হবে ইনশাআল্লাহ। এজন্য ওলামাদের কাছ থেকে আমরা লাভবান হবো। ওনারা কোনও ভুল ধরলে আমরা সংশোধন হবো।
মাওলানা সাদ কান্ধলভি বলেন, আমাদের কাজ হলো বয়ান করা। বয়ানে অনেক সময় ভুল হয়ে যায়। আমি সবার সামনে রুজু (বর্তমান অবস্থান থেকে সরে আসা) করেছি। কোনও কথায় যদি দোষ হয়, এটা থেকে আমি রুজু করতেছি, আগেও করেছি, এখনও করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ