ঢাকা, রোববার 14 January 2018, ১ মাঘ ১৪২৪, ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রধানমন্ত্রী বরাবর খুলনা উন্নয়ন কমিটির স্মারকলিপি পেশ

খুলনা অফিস: খুলনায় গ্যাস সরবরাহ, বিমান বন্দন, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় দ্রুত বাস্তবায়ন এবং বিভিন্ন সড়ক উন্নয়নের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর খুলনা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।
গত সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে এ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে,  ২০১০ সালে খুলনায় গ্যাস সরবরাহের কথা ছিল। অদ্যাবধি খুলনায় গ্যাস সরবরাহ করা হয়নি। যদিও আড়ংঘাটা পর্যন্ত গ্যাস ট্রান্সমিশন লাইন স্থাপন ও পাইপ আনা হয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি খুলনা থেকে গ্যাস সরবরাহের জন্য আনা পাইপ অন্যত্র সরিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে শুনেছি। পাইপ অন্যত্র সরানো হলে অদূর ভবিষ্যতে খুলনায় আর গ্যাস সরবরাহের সম্ভাবনা থাকবে না।
২০১৩ সালে বাগেরহাটের রামপালে প্রায় ৫৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে খানজাহান আলী বিমান বন্দর স্থাপনের অনুমোদন করা হয়। বর্তমানে প্রকল্পটি সম্পূর্ণ স্থবির। অবিলম্বে এ সকল জটিলতা নিরসন করে খুলনায় বিমানবন্দর দ্রুত বাস্তবায়ন দেখতে চায় খুলনাবাসী। ২০১১ সালের ৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালিশপুরের জনসভায় খুলনায় একটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কাজও শুরু হয়েছিল। কিন্তু
প্রকল্পটিতে কোনরূপ দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়নি। হিমাগারেই পড়ে আছে প্রকল্পটি। খুলনা বিভাগীয় সদর থেকে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতের সড়ক-মহাসড়কগুলোর খুবই বেহাল অবস্থা। অবিলম্বে খুলনা-যশোর, খুলনা-পাটুরিয়া, খুলনা-বাগেরহাট, খুলনা-সাতক্ষীরা, খুলনা-মংলা রুটের সড়কগুলো সংস্কার ও সম্প্রসারণ জরুরি। এছাড়া জিয়া হল পুনঃনির্মাণ, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে এক হাজার বেডে উন্নীতকরণ ও মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা, রেল স্টেশন থেকে পাওয়ার হাউজ মোড়, ময়লাপোতা-জিরোপয়েন্ট পর্যন্ত ছয় লেনকরণ, খুলনা টেক্সটাইল পল্লী, খুলনা মেরিন একাডেমি, খুলনা ক্যাডেট কলেজ, বোটানিক্যাল গার্ডেন ও চিড়িয়াখানা নির্মাণ, রাষ্ট্রায়াত্ত পাটকলের ১১ দফা দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি খুলনাবাসীর।
স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম কমিটির সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন, মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান, এডভোকেট এস এম মঞ্জুর উল আলম, সিনিয়র নেতা এস এম দাউদ আলী, সহ-সভাপতি মো. নিজামউর রহমান লালু, শাহীন জামান পন, এডভোকেট শেখ আবুল কাশেম, মো. ফজলুর রহমান, সাবেক কাউন্সিলর মামনুরা জাকির খুকুমনি, যুগ্ম-মহাসচিব এডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মো. মনিরুজ্জামান রহিম, মো. মিজানুর রহমান বাবু, আফজাল হোসেন রাজু, শেখ মোহাম্মাদ আলী,  সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়মন্ড, এস এম আকতার উদ্দিন পান্নু, এডভোকেট এ বি এম মোস্তফা জামান, শেখ মুশার্রফ হোসেন, মো. খলিলুর রহমান, এডভোকেট মনিরুল ইসলাম পান্না, রকিব উদ্দিন ফারাজী, মো. ইসমাইল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, এডভোকেট শামীমা সুলতানা শিলু, এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, কাজী মিরাজ হোসেন প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ