ঢাকা, বুধবার 17 January 2018, ৪ মাঘ ১৪২৪, ২৯ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তারের ইন্তিকাল

স্টাফ রিপোর্টার : বরেণ্য সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার ইন্তিকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। চামেলিবাগের বাসা থেকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে তিনি ইন্তিকাল করেন। তার বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। তিনি স্বামী, এক ছেলেসহ আত্মীয়স্বজন ও অসংখ্য শুভাকাক্সক্ষী রেখে গেছেন।
তার স্বামী সংগীতশিল্পী আকরামুল ইসলাম বলেন, শাম্মী আক্তার ছয় বছর ধরে ব্রেস্ট ক্যানসারে ভুগছিলেন। গতকাল দুপুরে বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ায় বারডেম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে বিকেল চারটার দিকে তিনি ইন্তিকাল করেন। আজ বুধবার জোহরের নামাজের পর শান্তিনগর আমিনবাগ জামে মসজিদে শাম্মী আক্তারের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর তাকে শাহজাহানপুর কবরস্থানে দাফন করা হবে।
‘ঢাকা শহর আইসা আমার’, ‘আমি তোমার বধূ’, ‘মনে বড় আশা ছিল’, ‘আমি যেমন আছি’, ‘বাংলার মাটি’, ‘বিদেশ গিয়ে’, ‘সইতে পারি না’, ‘ঝিলমিল’, ‘আমার মনের বেদনা’, ‘ফুলে ফুলে বাসা’, ‘আমার নায়ে পার হইতে লাগে ষোলো আনা’, ‘এই রাত বলে’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় গানের শিল্পী শাম্মী আক্তার।
শাম্মী আকতার নামে তিনি পরিচিত হলেও আসল নাম ছিল শামীমা আক্তার। শামীমাকেই আদর করে সবাই ডাকতেন ‘শাম্মী’ বলে।
শাম্মী আক্তার খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। মাত্র ছয় বছর বয়সে তার সংগীত জীবনের শুরু হয়। বাবা শামসুল করিম সরকারি চাকরি করতেন। বাবার বদলির কারণে দেশের কয়েকটি জেলায় বিভিন্ন শিক্ষকের কাছে সংগীতের তালিম নেয়ার সুযোগ পান তিনি। ১৯৭০ সালে তিনি খুলনা বেতারে তালিকাভুক্ত হন। ১৯৭৫ সালে ঢাকায় এসে গান গাওয়ার আমন্ত্রণ পান। খুলনা থেকে ঢাকায় চলে আসেন শাম্মী আখতার। নিয়মিত গাইতে শুরু করেন বেতার ও টেলিভিশনে। প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক সত্য সাহা তাকে ‘অশিক্ষিত’ চলচ্চিত্রে গান গাওয়ার সুযোগ দেন। প্রথম সুযোগেই দারুণ জনপ্রিয় হয় তার গাওয়া গান ‘ঢাকা শহর আইসা আমার আশা ফুরাইছে’।
চলচ্চিত্রের গানে সাফল্য তাকে শ্রোতাদের খুব কাছে নিয়ে যায়। তিন শতাধিক চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দেন শাম্মী আক্তার। ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’ ছবির ‘ভালোবাসলেই সবার সাথে ঘর বাঁধা যায় না’ গানের জন্য ২০১০ সালে শাম্মী আক্তার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। ১৯৭৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি আকরামুল ইসলামের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ