ঢাকা, বুধবার 17 January 2018, ৪ মাঘ ১৪২৪, ২৯ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শ্রীপুর ও সোনাইমুড়ীতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড দোকান ও বসতঘর পুড়ে ছাই

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুরের শ্রীপুরে আগুন পোহাতে গিয়ে শনিবার রাতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে বিভিন্ন মালামালসহ তিনটি দোকান পুড়ে গেছে। এ সময় আগুন নেভাতে গিয়ে দোকান মালিকসহ তিনজন আহত হয়েছে।
ফায়ার সার্ভিসের শ্রীপুর স্টেশন অফিসার আল আমীন জানান, গাজীপুরে শ্রীপুর পৌর শহরের আনসার রোড মোড়ে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রিয়াজ উদ্দিন সুপার মার্কেটে শনিবার রাতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তীব্র শীতের কারণে পরিত্যাক্ত ফোমে আগুন পোহাতে গিয়ে টিনশেড ওই মার্কেটের সাজেদা বেগমের মালিকানাধীন একটি অটোরিক্সার শো রুমে আগুনের সূত্রপাত হয়। আগুন মুহূর্তেই নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে একই মালিকের পার্শ্ববর্তী আরো দুটি দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আগুন নিভাতে গিয়ে দোকান মালিক ইসমাইল হোসেন (৩৬), সাব্বির (২৮), আলামিন (২০) আহত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। আগুনে ওই তিনটি দোকানের আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন মালামাল পুড়ে গেছে।
সোনাইমুড়ী (নোয়াখালী)
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে অগ্নিকাণ্ডে ৩টি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার ভাওরকোট গ্রামের হাজী আবদুর রহিম মুন্সী বাড়িতে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারসূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভাওরকোট গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলেরা চাকুরীর সুবাদে বাড়িতে থাকেন না। স্ত্রী শিরিন আক্তার বাড়িতে একা থেকে সহায়-সম্পত্তি দেখবাল করেন। শনিবার দিবাগত রাতে খাবার খেয়ে তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। হঠাৎ দেখেন চারদিকে আগুন। তড়িঘড়ি করে আগুন নিভাতে গিয়ে দেখেন একদল দুর্বৃত্ত আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। আগুনে ৩টি টিনের বসতঘর, নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার, আসবাবপত্র ও কাপড়-চোপড় পুড়ে ছাই হয়। পরে তার চিৎকারে বাড়ির অন্যান্য লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। সোনাইমুড়ী ফায়ার সার্ভিস প্রায় ২ ঘণ্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
এ বিষয়ে ভাওরকোট গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের পুত্র মোঃ ইয়াকুব হোসেন বাদী হয়ে একই গ্রামের মৃত আবদুর রহিমের পুত্র আবু তাহের, মৃত নুরুল ইসলামের পুত্র মোস্তাফিজুর রহমান মামুন ও জাহাঙ্গীর আলম, আবু তাহেরের পুত্র আবদুল বাতেন (৩৮) ও লুতফুর রহমান (২৮), আবুল কাশেমের পুত্র মাহবুবুর রহমান (৩৫) কে  বিবাদী করে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। সোনাইমুড়ী থানার ওসি ইসমাইল মিঞা উক্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ক্ষতিগ্রস্ত মোঃ ইয়াকুব হোসেন সাংবাদিকদের জানান, বিবাদীদের সাথে দীর্ঘদিন থেকে আমাদের জমি-জমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ বিষয়ে আদালতে জি.আর মামলা ২০০৯/১৬, ২০৭৩/১৬, ২০৪৩/১৭ রয়েছে। বিবাদীগণ গ্রেফতার হয়েছিল।
জামিনে এসে তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে। বিভিন্ন সময় আমাদেরকে মামলা উঠিয়ে নেয়ার হুমকী দিয়ে আসছিল। অন্যথায় ঘরের ভিতরে রেখে পুড়িয়ে মারবে। এরই ধারাবাহিকতায় বিবাদীরা আমার বৃদ্ধ মাতা ঘরে থাকা অবস্থায় উক্ত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে। আমাদেরকে সর্বস্বান্ত এবং নিঃস্ব করে দিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ