ঢাকা, বৃহস্পতিবার 18 January 2018, ৫ মাঘ ১৪২৪, ৩০ রবিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

এক বছরে ১২শ’ কোটি টাকার চোরাচালান পণ্য ও মাদকদ্রব্য জব্দ করেছে বিজিবি

স্টাফ রিপোর্টার : বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ২০১৭ সালের জানুয়ারি হতে ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের সীমান্ত এলাকাসহ অন্যান্য স্থানে অভিযান চালিয়ে ১ হাজার ২১৭ কোটি ৫৫ লাখ ৭৪ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রকারের চোরাচালান ও মাদকদ্রব্য আটক করেছে।
আটককৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ১ কোটি ৫৫ লাখ ৭১ হাজার ১৩ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১ লাখ ৪০ হাজার ৬০৮ বোতল বিদেশী মদ, ১৪ হাজার ১৪৬ লিটার বাংলা মদ, ৪৯ হাজার ৬৫০ ক্যান বিয়ার, ৩ লাখ ২৮ হাজার ৬৮৯ বোতল ফেনসিডিল, ১৬ হাজার ৩৫৭ কেজি গাঁজা, ৪৪ কেজি ৩২৪ গ্রাম হেরোইন, নেশাজাতীয় ইনজেকশন ২৮ হাজার ২৮০ এবং ১ কোটি ৬৭ লাখ ৪৫ হাজার ২৫১টি অন্যান্য ট্যাবলেট।
বিজিবি সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মহসীন রেজা গতকাল বুধবার জানান, আটককৃত অন্যান্য চোরাচালান দ্রব্যের মধ্যে ২ লাখ ৫৩ হাজার ৯০৮টি শাড়ি, ৫০ হাজার ৫৯০টি থ্রিপিস/শার্টপিস, ৪৭ হাজার ১৩ মিটার থান কাপড়, ১৮ হাজার ৪০১টি তৈরি পোশাক, ২ লাখ ৪২ হাজার ৫৬০ সিএফটি কাঠ ও ৪২ কেজি ১০৬ গ্রাম স্বর্ণ।
একই সময় উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ৬৫টি পিস্তল, ৪৮টি বন্দুক, ৩০০টি গুলী, ৬১টি ম্যাগাজিন এবং ১টি রিভলবার। বিজিবি’র অভিযানে মাদক পাচারসহ অন্যান্য চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগে ২,৬৮৯ জন এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমের দায়ে ১,১১৪ জন বাংলাদেশী নাগরিককে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
এছাড়া মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গাদের উপর সে দেশের সেনাবাহিনীর চলমান অত্যাচার, নির্যাতন ও জাতিগত নিধন কর্মকান্ডের প্রেক্ষিতে গত আগস্ট ২০১৭ হতে ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশকারী ১০ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শরনার্থীদের প্রাথমিকভাবে সাময়িক আশ্রয়, নিরাপত্তা সহায়তা, সীমিত মেডিকেল সহায়তা প্রদানসহ বাংলাদেশে আশ্রয় শিবিরে স্থানান্তর এবং রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমে বিজিবি অগ্রণী ও প্রসংশনীয় ভূমিকা পালন করে আসছে।
বিগত ২০১৬ সালে বিজিবি’র অভিযানে ১১৬১ কোটি ৬৭ লাখ ১৭ হাজার মূল্যের বিভিন্ন প্রকারের চোরাচালান ও মাদকদ্রব্য আটক করা হয়েছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ