ঢাকা, শুক্রবার 19 January 2018, ৬ মাঘ ১৪২৪, ১ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

উভয়দেশ ফিলিস্তিন-কাশ্মীরের ভূখণ্ড দখল করে রেখেছে

১৮ জানুযারি, জিও টিভি : পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ বলেছেন, ভারত ও ইসরাইল অভিন্ন অশুভ উদ্দেশ্য নিয়ে নিজেদের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলছে। তবে পাকিস্তান একে ভয় পায় না। তার দাবি, নিজের সুরক্ষার সামর্থ্য পাকিস্তানের রয়েছে। ভারত-ইসরাইলকে মুসলমানদের ভূখণ্ড দখলকারী আখ্যা দিয়েছেন আসিফ। পাকিস্তানের বেসরকারি টিভি চ্যানেলে ‘ক্যাপিটাল টক’ নামের টক-শো অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। ভারত-ইসরাইল কূটনৈতিক সম্পর্কের ২৫ বছরের মধ্যে দ্বিতীয় ইসরাইলী সরকার প্রধান হিসেবে ছয় দিনের জন্য গত রোববার ভারত এসেছেন নেতানিয়াহু। গত সোমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ইসরাইলী প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পর সাইবার নিরাপত্তাসহ ৯টি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে চুক্তি হয়। পাকিস্তানের বেসরকারি টিভি চ্যানেল জিও টিভির ‘ক্যাপিটাল টক’ অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ভারত ও ইসরাইল উভয় দেশই মুসলমানদের ভূখণ্ড দখল করে রেখেছে। ইসরায়েল ফিলিস্তিনিদের বিশাল এলাকা আর ভারত কাশ্মীরের মুসলিমদের ভূখ- দখল করে রেখেছে। সম্প্রতি, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর স্বীকৃতি প্রত্যাখ্যানে জাতিসংঘের ভোটে ফিলিস্তিনের পক্ষ নিয়েছে ভারত। তবে খাজা আসিফ বলেছেন, পাকিস্তান কখনওই ইসরাইলের অস্তিত্বকে মেনে নেয়নি, নেবে না। তার দাবি, মুসলমানদের প্রতি শত্রুতাই ভারত-ইসরাইলের বন্ধুত্ব ও আঁতাতের মূল ভিত্তি। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনী জনগণের সঙ্গে পাকিস্তানী জাতির ভাবাবেগ জড়িত। আর কাশ্মীর ইস্যুটির সঙ্গে পাকিস্তানের অস্তিত্ব জড়িত। পাকিস্তানের সামরিক সক্ষমতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনী সর্বশক্তি দিয়ে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। আর এর মধ্য দিয়ে আমাদের আত্মরক্ষার ক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।যুক্তরাষ্ট্র আর তাদের মিত্ররা ধারাবাহিক অভিযোগ করে আসছে, আফগান তালেবান ও তাদের মিত্র হাক্কানি নেটওয়ার্ককে পাকিস্তানে ‘নিভৃত আবাস’ গড়ে তোলার সুযোগ করে দিয়েছে ইসলামাবাদ। নতুন বছরের টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মিথ্যাচার ও সন্ত্রাসবাদে মদদের অভিযোগ তুলে পাকিস্তানে সহায়তা বন্ধের হুমকি দেওয়ার পর ৫ জানুয়ারি নিরাপত্তা সহযোগিতা স্থগিতের ঘোষণা দেয় ওয়াশিংটন। সবশেষ মার্কিন দূতাবাস থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাকিস্তানকে হাক্কানি নেটওয়ার্কসহ তার অঞ্চলভুক্ত অন্যান্য জঙ্গিগোষ্ঠীর ব্যাপারে সচেতন হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন’। তবে খাজা আসিফের দাবি, প্রচুর আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সফলতা অর্জন করেছি। তাই আমরা কাউকে ভয় পাই না।
এর আগে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেছিলেন, ঘনিষ্ঠ বাণিজ্যিক ও সামরিক সম্পর্ক গড়ে তোলার আড়ালে ভারত ও ইসরাইল যে আঁতাত গড়ে তুলছে তার দিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখছে পাকিস্তান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ