ঢাকা, শনিবার 20 January 2018, ৭ মাঘ ১৪২৪, ২ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আজ সাগরদাঁড়িতে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা শুরু

মোল্যা আব্দুস সাত্তার, কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : বিশ্ব সাহিত্যের বিস্তৃত অঙ্গনের মহান দিকপাল ও আধুনিক বাংলা সাহিত্যের প্রবাদপ্রতিম মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৪ তম জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে জন্মস্থান সাগরদাঁড়িতে আজ ২০ জানুয়ারী থেকে বসছে ৭ দিন ব্যাপী মধুমেলা। এসএসসি পরীক্ষার কারণে ৪ দিন এগিয়ে আনা হলেও মূলত মেলা জমবে ২৫ জানুয়ারী থেকে। দক্ষিণাঞ্চলের সর্ববৃহৎ এ মেলা উদযাপনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নিয়েছে। জন্মেৎসব ও মেলাকে ঘিরে যাতে কোনো চক্র নাশকতা ঘটাতে না পারে সেজন্যে সাগরদাঁড়িতে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা। সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা উপলক্ষে কবির জন্মভূমির স্মৃতি বিজড়িত কপোতাক্ষ নদ, জমিদার বাড়ির আম্রকানন, বুড়োকাঠ বাদাম গাছ তলা, বিদায় ঘাটসহ মধুপল¬¬ী হাতছানি দিয়ে ডাকছে মধু ভক্তদের। মধুভক্ত লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতিতে মুখরিত হবে সাগরদাঁড়ির চারপাশ। বর্ণিল সাজে সেজেছে সাগরদাঁড়ি। সপ্তাহ ব্যাপী মেলা উপলক্ষে নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচি। হাজারও প্রাণের উচ্ছ্বাসের সাথে কবির জন্মোৎসব ও মধুমেলায় আগমন ঘটবে লক্ষাধিক মানুষের প্রাণ। 

মধু মেলার সপ্তাহ ব্যাপী কর্মসূচি থেকে জানা গেছে, শনিবার বিকেলে স্থানীয় সরকার, পল¬¬ী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে মেলার উদ্বোধন করবেন। বিশেষ অতিথি থাকবেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার এমপি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক এমপি, সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, মো. মনিরুল ইসলাম, কাজী নাবিল আহম্মেদ, রনজিৎ কুমার রায়, স্বপন ভট্টাচার্য্য, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, যশোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার, কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন, কেশবপুর পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, সাংবাদিক শ্যামল সরকার। 

মেলার দ্বিতীয় দিন ২১ জানুয়ারি “মধুসূদনের স্বদেশ চেতনা ও বাঙ্গালি জাতীয়তাবোধ” বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় প্রধান অতিথি থাকবেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আনোয়ার হোসেন, বিশেষ অতিথি থাকবেন নজরুল ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক কবি মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক (যুগ্ম সচিব), যশোর এম এম কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর নমিতা রানী বিশ্বাস। মেলার তৃতীয় দিন ২২ জানুয়ারী “মধুসূদনের আন্তর্জাতিকতা ও আন্তর্জাতিক বিশ্বে মধুসূদন” বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলির সদস্য শ্রী পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য, বিশেষ অতিথি থাকবেন ট্রেজারার, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ও অধ্যক্ষ (অবসরপ্রাপ্ত) সরকারি বি এল কলেজ প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ। মেলার চতুর্থ দিনে ২৩ জানুয়ারি “বাংলা কবিতায় আধুনিকতা ও মাইকেল মধুসূদন দত্ত” বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় প্রধান অতিথি থাকবেন যশোর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল, বিশেষ অতিথি থাকবেন, যশোর সরকারি এম এম কলেজের বাংলা বিভাগের অবসর প্রাপ্ত অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান। মেলার পঞ্চম দিন ২৪ জানুয়ারি “মধুসূদনের জীবন ও সাহিত্য” বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় প্রধান অতিথি থাকবেন যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রফেসর আমিরুল আলম খান। বিশেষ অতিথি থাকবেন খুলনা বি এল কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক প্রফেসর আব্দুল মান্নান। মেলার ষষ্ঠ দিন ২৫ জানুয়ারি “মধুসূদন ও মেঘনাদবধ কাব্য” বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় প্রধান অতিথি থাকবেন যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোহাম্মদ আব্দুল আলীম, বিশেষ অতিথি থাকবেন, খুলনা সরকারি আজম খান কমার্স কলেজের প্রাক্তন অধ্যাপক অসিত বরণ ঘোষ। মেলার শেষ দিন ২৬ জানুয়ারি মহাকবি মধুসূদন পদক প্রদান ও সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। বিশেষ অতিথি থাকবেন যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, বিপিএম, পিপিএম (বার), যশোর সিভিল সার্জন ডা. দিলীপ কুমার রায়, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন।

উল্লেখ্য, কপোতাক্ষ নদের তীরে সাগরদাঁড়ি গ্রামে বাবা জমিদার রাজনারায়ন দত্ত ও মাতা জাহ্নবী দেবীর কোলে বাংলা ১২৩০ খ্রিষ্টাব্দের ১২ মাঘ (১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারী) শনিবার জন্মে ছিলেন মহাকবি মধুসূদন। ১৮৭৩ সালের ২৯ জুন তিনি বিদায় নেন পৃথিবী থেকে।

সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত জানান, মেলা উপলক্ষে এলাকাবাসীর ভেতর ব্যাপক হারে উৎসাহ উদ্দিপনা দেখা দিয়েছে। সাগরদাঁড়িসহ অন্য ইউনিয়নগুলোতেও চলছে নানা আয়োজন। বিশেষ করে খেজুরের রসে ভেজানো পিঠায় অতিথি আপ্যায়নে প্রস্তুতি নিয়ে চালের গুঁড়া তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন গ্রামীণ বধূরা। সাগরদাঁড়িবাসী অতিথি আপ্যায়নে ইতিমধ্যে প্রস্তুতিও সম্পন্ন করেছে।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মেলা উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব মো. মিজানূর রহমান জানান, মেলা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে সাগরদাঁড়িতে যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ