ঢাকা, শনিবার 20 January 2018, ৭ মাঘ ১৪২৪, ২ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পরিবার-পরিজন নিয়ে বাঁচতে চায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী আমিরুল ইসলাম মানিক 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : পরিবার-পরিজন নিয়ে বাঁচতে চায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী আমিরুল ইসলাম মানিক-(৪১)। বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে তিনি মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কর্মসংস্থানের মাধ্যমে তাকে পুনর্বাসন করার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের ভাটপাড়া গ্রামের মরহুম আবদুল আওয়ালের ছেলে আমিরুল ইসলাম মানিক বর্তমানে পৌর এলাকার পশ্চিম মেড্ডা নোয়াপাড়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। অন্যের সহায়তার উপরই চলছে তাঁর সংসার।

আমিরুল ইসলাম মানিক জানান,পৈত্রিক বাড়ি ভাটপাড়ায় হলেও সেখানে তাদের কোন জায়গা-জমি এমনকি বাড়ি নেই। তাই বাধ্য হয়েই নোয়াপাড়ায় ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। পরিবারে রয়েছেন তার বৃদ্ধ মা, স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়ে। ৫জনের সংসার নিয়ে তিনি মানবেতর জীবন যাপন করছেন। মানিক জানান, তিনি যখন তৃতীয় শ্রেণীতে পড়েন, তখন তার ১০ বয়স বছর। তখন তার চোখে সমস্যা দেখা দেয়। এক সময় তিনি দু’চোখের দৃষ্টি হারিয়ে ফেলেন। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হলেও তিনি থেমে থাকেননি। ২০০৫ সালে ব্রেইল পদ্ধতিতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম.এস.এস পাশ করেছেন। তারপর একটি এনজিওতে চাকরি নেন। ভালোই কাটছিল তার দিনকাল। কিন্তু সেখানে মাত্র ৪ বছর চাকরি করার পর এনজিওর প্রকল্প শেষ হয়ে যায়। প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার পর তার চাকরিও শেষ হয়ে যায়। এর পর থেকেই তিনি বেকার। মানিক বলেন, নিজের সহায়-সম্পত্তি, বাড়ি-ঘর না থাকায় তিনি পরিবারের ৫ সদস্যকে নিয়ে পশ্চিম মেড্ডার ভাড়া বাসায় মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। তিনি বলেন, পরিবারের আয়ের কোন উৎস নেই। শ্বশুর বাড়িসহ মানুষের সহায়তায় চলে তার পরিবার। আমিরুল ইসলাম মানিক বলেন, তিনি দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী হলেও এ পর্যন্ত সরকারিভাবে কোন ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা পাননি। তিনি কর্মসংস্থানের মাধ্যমে তাকে পুনর্বাসন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ