ঢাকা, মঙ্গলবার 23 January 2018, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৫ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্লে-অফ ম্যাচে সাইফ-টিসি মুখোমুখি দর্শক টানতে লটারি

স্পোর্টস রিপোর্টার: এএফসি কাপের কোয়ালিফাইং রাউন্ডের প্রথম প্লে-অফ ম্যাচে আজ মালদ্বীপের ট্র্যাস্ট অ্যান্ড কেয়ার (টিসি) ফুটবল ক্লাবের মুখোমুখি হচ্ছে সাইফ স্পের্টিং ক্লাব। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকাল ৩টায় ম্যাচটি শুরু হবে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের ইংলিশ কোচ রায়ান নর্থমোর চান জয় দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু করতে। দল ও কোচের আন্তর্জাতিক অভিষেকটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে- এমন প্রত্যাশা স্বাগতিক দর্শকদের। গ্যালারিতে দর্শক আনতে চেষ্টার কমতি নেই স্বাগতিক সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের। দর্শকদের মাঠে আসার আহ্বানের পাশাপাশি থাকছে তাদের জন্য লোভনীয় পুরস্কার। লটারী বিজয়ী তিনজন দর্শক সুযোগ পাবেন দলের সঙ্গে মালদ্বীপ যাওয়ার। আরো ৭ জনের জন্য থাকবে মোবাইল সেটসহ আকর্ষণীয় কিছু পুরস্কার। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবলে একদমই নতুন দল। মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের ইতিহাস ঐহিত্যও তেমন সমৃদ্ধ নয়। বছর চারেক ধরে ক্লাবটি খেলছে মালদ্বীপের প্রিমিয়ার লিগে। তাদের নামটি এ অঞ্চলের মানুষে কাছে বেশি পৌঁছেছে গত বছর চট্টগ্রামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কারনে। এবারও জয় নিয়েই ফিরতে চায় টিসি ক্লাব। গতকাল সোমবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষবারের মতো শিষ্যদের ঝালিয়ে নিলেন ক্লাবটির কোচ আহমেদ নিজাম।

হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ম্যাচে প্রত্যেক দলই চায় ঘরের মাঠে খেলার সুবিধা কাজে লাগাতে। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবও সে সুবিধা কাজে লাগিয়ে জয় নিয়ে উড়াল দিতে চায় মালদ্বীপে ফিরতি ম্যাচ খেলতে। ৩০ জানুয়ারি মালের ওই ম্যাচই নির্ধারণ করবে কোয়ালিফাইং রাউন্ডের প্রথম প্লে-অফ জিতবে কারা। ঘরে জিতলে মনোবল বাড়িয়েই মালদ্বীপ যেতে যান সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কোচ। কিন্তু সে সুযোগ দিতে চাননা অতিথি দলের কোচ আহম্মেদ নিজাম। প্রতিপক্ষের মাঠে ড্র করে ঘরের ম্যাচে জেতার একটা কৌশল থাকেই সফরকারী দলের। মালদ্বীপের দলটির কোচের মনে এমন গোপন কৌশল থাকলেও গতকাল সোমবার সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য বলেছেন, ‘আমরা ড্রয়ের কোনো চিন্তাই করছি না। জিতেই দেশে ফিরতে চাই।’ ইতিহাস ঐহিত্যে প্রতিপক্ষ একটু এগিয়ে থাকলেও সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের কোচ এ ম্যাচে নিজেদেরই ফেভারিট মানছেন। এএফসি কাপের জন্য সাইফ দল শক্তিশালী করতে ধার নিয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনীর ৭ জন ফুটবলার। মোহামেডানের নাইজেরিয়ান এনকোচা কিংসলেও খেলবেন সাইফের জার্সি গায়ে।

এদিকে মাঠে দর্শক আনতে পুরস্কারের ব্যবস্থা করেছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। গত কয়েকদিন ধরেই নবাগত এই দলটি ক্যাম্পেইন চালিয়ে যাচ্ছে। নিজস্ব খরচে ৩ জন দর্শক মালদ্বীপে নিয়ে যাবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। তবে ভাগ্যবান ওই ৩ দর্শক বেছে নিতে লটারির ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দলটি। মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের সঙ্গে দলটির এএফসি কাপের ম্যাচ দেখতে আসা দর্শকদের মধ্য থেকেই বেছে নেয়া হবে ৩ জনকে। এ জন্য দর্শকদের শুধু সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিতরণ করা একটি লিফলেট নিয়ে মাঠে ঢুকতে হবে।লিফলেটের গায়ের নম্বরটিই ভাগ্যবান ৩ দর্শককে মিলিয়ে দেবে মালদ্বীপ যাওয়া-আসার সুযোগ। সঙ্গে থাকা-খাওয়া। মালেতে দুই দলের ফিরতি ম্যাচটা দেখবে তারা। ম্যাচে কোন টিকেট মূল্য থাকছেনা।

ম্যাচটি আন্তর্জাতিক বলেই টিকিটের মাধ্যমে লটারির কোনো সুযোগ নেই। তাই দর্শকের জন্য সাইফের বিকল্প ব্যবস্থা লিফলেট বা কুপন। স্বাগতিক সাইফ দর্শকদের মধ্যে থেকে পুরস্কার দেবে ১০ জনকে। বাকি ৭টির মধ্যে থাকছে আকর্ষণীয় মোবাইলসেটও। ম্যাচের বিরতির সময় ড্র করে ভাগ্যবান দর্শকদের বেছে নেবে সাইফ। ম্যাচ শেষে দেয়া হবে পুরস্কার। ৩০ জানুয়ারি মালে যাওয়ার জন্য যাদের নাম উঠবে লটারিতে তাদের কিছু শর্ত পূরণও করতে হবে। কারো মেয়াদসহ পার্সপোর্ট না থাকলে তার বিকল্পও খুঁজে নেয়া হবে লটারির মাধ্যমে। ক্লাব কর্তৃপক্ষের প্রত্যাশা তারা গ্যালারিতে আশানুরূপ দর্শক আনতে পারবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ