ঢাকা, মঙ্গলবার 23 January 2018, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৫ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সবার অংশগ্রহণে সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা না করলে ইতিহাস আ’লীগকে ক্ষমা করবেনা -ডা. জাফরুল্লাহ

স্টাফ রিপোর্টার: নিরাপত্তার নামে বেগম জিয়া নিজেই গৃহবন্দী হয়ে থাকছেন মন্তব্য করে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, দুপুর বেলাও বিএনপি মনে করছে রাত শেষ হয়নি। আর সেই কারণেই তারা জনগণের কাছে যেতে পারছে না। তারা জনআকাক্সিক্ষত কর্মসূচিও গ্রহণ করতে পারছে না। নিরাপত্তার নামে বেগম জিয়া নিজেই গৃহবন্দী হয়ে থাকছেন। এভাবে চলতে থাকলে হবে না। তাকে মনে রাখতে হবে তার নিরাপত্তা সরকার দিবে না, আল্লাহ আর দেশের জনগণই তার নিরাপত্তা দিবে। তিনি বলেন, বেগম জিয়াকে জনগণের কাছে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে তার জনপ্রিয়তার ভিত হয়েই সরকার তাকে বক্সীবাজারের কোর্টে হাজিরার নামে ব্যস্ত রাখছে। একইসাথে সরকারকে সবার অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান। অন্যথায় ইতিহাস তাদের ক্ষমতা করবেনা বলেও মন্তব্য করেন তিনি। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ শিশুকল্যাণ মিলনায়তনে মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস স্মরণে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসাবে তিনি এসব কথা বলেন। ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া'র সভাপতিত্বে ও নগর সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান এডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, ডিএল সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, গণতান্ত্রিক ঐক্যের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, ন্যাপ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মতিয়ারা চৌধুরী মিনু, নরসিংদী জেলা সমন্বয়কারী এখলাছুল হক, যুবনেতা আবদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ। বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে বড় দলের অহমিকা ত্যাগ করার আহ্বান জানিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, কাউকে অবহেলা করা উচিত নয়। ছোট দলগুলোর নেতাদের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাদের কাছ থেকে পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। মওলানা ভাসানীর মত সম্মিলিত বিরোধী দল বা যুক্তফ্রন্ট গঠন করতে হবে। তাহলেই বিজয় সম্ভভ হবে। অন্যথায় চলমান সংগ্রামে বিজয়ের সম্ভবনা কম। তিনি বলেন, জাতি ও দেশের প্রয়োজনেই জিয়াউর রহমানকে সমর্থন করেছিলেন। দু:খজনক হলেও সত্য সেই বিএনপিও মওলানা ভাসানীকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হয়েছে। ২২ জানুয়ারি মওলানা ভাসানীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস বিএনপিরও পালন করা উচিত ছিল। ভাসানীকে দেয়া জিয়ার প্রতিশ্রুতি বিএনপি ভুলে গেছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান আর আপনার নাম জনগণের হৃদয়ে চিরস্থায়ী করতে হলে গণতন্ত্রকে মুক্ত করে দিতে হবে। কোন ধরনের প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন আয়োজন থেকে বিরত থাকতে হবে। ২০১৪ সালে দেয়া প্রতিশ্রুতি মনে রেখে সকল দলের অংশগ্রহণে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ