ঢাকা, মঙ্গলবার 23 January 2018, ১০ মাঘ ১৪২৪, ৫ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আগামী বর্ষা মওসুমেও খুলনা মহানগরীতে হাঁটু পানি জমবে

খুলনা অফিস: খুলনা মহানগরীর দীর্ঘদিনের দুঃখ জলাবদ্ধতা। বর্ষা মওসুমের চার মাসের প্রায় সময় সিটি কর্পোরেশনের ৪০ শতাংশ পানিতে জমে যায়। নর্দমায় পলি উত্তোলনের কাজ অব্যাহত থাকলেও পানি নিষ্কাসন দ্রুত হচ্ছে না। এক হাজার কোটি টাকার দু’টি প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় অনুমতি দেয় নি। ফলেই ইচ্ছা থাকলেও কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ বর্ষা মওসুমের আগে প্রকল্প দু’টির কাজ শুরু হচ্ছে না। ফলে আগামী বর্ষা মওসুমেও খুলনা মহানগরবাসীকেও হাটু পানি অতিক্রম করে চলাচল করতে হবে।
মহানগরীর জলাবদ্ধতা দীর্ঘদিনের। ২০১৫ ও ২০১৬ সালের বৈশাখ মাসের শুরুতেই বৃষ্টি হয়। এতে হাটু পানি জমে যায়। ২০১৭ সালের মে থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ভারী বর্ষণে খানজাহান আলী রোড প্রায় ডুবে থাকতো। এ সময় যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, ইজিবাইক ও মাহেন্দ্র চলাচল বন্ধ থাকতো। জলাবদ্ধা নিরসনে সিটি ডেভেলমেন্ট ইনিসিটিভ ফর এশিয়া দু’টি প্রকল্প ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়।
সরকারি প্রকল্পে ব্যয় হবে দুইশ’১৯ কোটি টাকা। এ প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ৯০ দশমিক ৬৭ কিলোমিটার নতুন ড্রেন, ১১ কিলোমিটার আবাসিক এলাকায় ড্রেন নির্মাণ, মুজগুন্নি ও টুটপাড়া এলাকায় জমি অধিগ্রহণ করে নতুন ড্রেন সৃষ্টি। মন্ত্রণালয় জমি অধিগ্রহণের প্রস্তাব বাদ দেয়ার জন্য কেসিসি কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দিয়েছে।
অপরটি সাতশ’ ৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে এডিবির আরো একটি প্রকল্প মন্তণালয়ে জমা দেয়া হয়েছে। এ প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে শহর রক্ষা প্রকল্প, ৮৫ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ, ১০টি খাল খনন, ময়ুর নদীর দুই তীর সংরক্ষণ, একই এলাকায় সোলার স্ট্রীট লাইট, দুই পাড়ে বৃক্ষ রোপাণ, ছয়টি স্লইচগ্রেট নতুন করে নির্মাণ ও ৩০টি পুকুর ও লেক সংরক্ষণ।
কেসিসি’র চীফ প্লানিং অফিসার (চলতি দায়িত্ব) আবিরুল জব্বার জানান, সিটি ডেভেলমেন্ট ইনিসিটিভ ফর এশিয়া যাচাই-বাছাই করে দু’টি প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোন রূপ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। পাঁচ বছরে কেসিসি এলাকায় কোন প্রকল্প অনুমোদন হয়নি।
অপর সূত্রগুলো জানায়, কেসিসি’র পাঁচ বছর মেয়াদের মধ্যে প্রায় ১৪ মাস মেয়র কারাগার ও ক্ষমতার বাইরে ছিলেন। ২০১৪ সালের ১৫ জুন বিএনপি মনোনীগ মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান নির্বাচিত হন। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর কর্পোরেশনের এবারের মেয়াদ শেষ হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ