ঢাকা, বুধবার 23 May 2018, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৬ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিএনপি নির্বাচন করলে মহাজোটে যাবে জাপা

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: আগামীতে বিএনপির আন্দোলন-সংগ্রাম নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেছেন, বিএনপি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নিলে তাঁরা আগের মতো একলা নির্বাচন করবেন এবং ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবেন। তবে সব কিছুই নির্ভর করবে তখনকার রাজনৈতিক পরিস্থিতির ওপর।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে লালমনিরহাটে আকস্মিক এক সফরে এসে স্থানীয় সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত এরশাদ।

এরশাদ বলেন, ‘আমি মহাজোটে নাই। আমি বিরোধী দলে আছি। মহাজোটে যেতে পারি, অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে। অতএব, এই অঞ্চলে কতটি সিট চাই সেটা আমার ওপর নির্ভর করে না, প্রার্থীর ওপর নির্ভর করে। আমার ভাই (জি এম কাদের) যদি জিততে পারে, ভাই একটা সিট পাবে। কতটি সিট চাই সেটা বলা যাবে না। তবে ৩০০ আসনে আমাদের প্রার্থী আছে।’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিএনপি যদি ইলেকশনে না আসে তাহলে আমরা তো করবই (নির্বাচন)। আমরা তখন বিরোধী দল হয়ে করব (নির্বাচন)। ৩০০ আসনে প্রার্থী দেব।’

বিএনপির আন্দোলন নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে এরশাদ বলেন, ‘বিএনপি আন্দোলন করতে পারে। এই আন্দোলন কতটুকু করতে পারে, ইলেকশন বন্ধ করতে পারবে কি না আমার সন্দেহ আছে। এমনও হতে পারে খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে ইলেকশন করবে না। এটা নাও হতে পারে। একটা অংশ ভেঙে যায়, ইলেকশন করবে। আরেকটা অংশ খালেদা জিয়ার জন্য ইলেকশন করবে না। অনেক রকম অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। সেই অবস্থা দেখে আমরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।’

এর আগে এরশাদ সার্কিট হাউসে পৌঁছালে জেলা পুলিশের একটি দল তাঁকে গার্ড অব অনার দেয়। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ ও লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক।

পরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ তাঁর ছোট ভাই ও পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের সাপটানা বাজারস্থ বাসভবনে যান। সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। সন্ধ্যায় রংপুরের উদ্দেশে রওনা দেন এরশাদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ