ঢাকা, বুধবার 24 January 2018, ১১ মাঘ ১৪২৪, ৬ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কন্যা শিশুটি প্রতিবন্ধী হওয়ায়...

পাবনা সংবাদদাতা:  ঈশ্বরদী  শহরের কলেজ রোডের অরণকোলা এলাকা থেকে দেড় মাস বয়সী একটি শিশু চুরির মিথ্যে ঘটনা ফাঁস হলো গত শনিবার রাতে নিজ বাড়ির ষ্টিলের আলমারা থেকে শিশু আতিকা জান্নাতের লাশ উদ্ধারের পর। নিজ কন্যা শিশু হত্যার দায়ে আতিকা জান্নাতের পিতা আশরাফুল ইসলাম (৩৩), মোঃ আইয়ুব আলী খান দাদা (৭২), সেলিনা খান দাদী (৬৮) ও ছেলের মামী জোৎস্না খাতুন (৫৭) কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। দেড় মাস বয়সী শিশু আতিকা জান্নাত চুরির খবর পেয়ে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ওই বাড়িতে যান এবং পর্যবেক্ষণ করেন। এর কোন কিনারা করতে পারছিলেন না পুলিশ। সন্দেহজনক ভাবে পাশের বাড়ির চারজনকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকেন। ওই চার ব্যক্তির কাছ থেকে কোন তথ্য না পেয়ে পুলিশের সন্দেহ বাড়তে থাকে। বাড়িতে থাকা ষ্টিলের আলমারার চাবি চাইলে বলেন, হারিয়ে গেছে। সন্দেহের মাত্রা বেড়ে গেলে আলমিরা ভেঙ্গে শিশু জান্নাতের লাশ উদ্ধার করা হয়।পর পর কন্যা শিশুর জন্ম, আগের ১ বছরের একটি কন্যা শিশু এবং ৭ মাসে ভূমিষ্ট হওয়া আতিকা জান্নাতের জন্মকে আনন্দহীন করে তোলে। বংশের বাতি জালাবে কে, ছেলে সন্তান না হওয়ায় মেয়েকে হত্যা করলো বাবা আশরাফুল ইসলাম।ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন জানান, শিশু আতিকা জান্নাত চুরির খবর পেয়ে ওই বাড়িতে উপস্থিত হই। বাবা, দাদা ও দাদী কৌশলে বাচ্চার মাকে ছাদে পাঠিয়ে ইচ্ছাকৃত ভাবে শারীরিক ভাবে অস্বাভাবিক দেড় মাসের কন্যাকে শ্বাস রোধে হত্যা করে ষ্টিলের আলমিরাতে রেখে দেয়। বাচ্চার মা এসে বাচ্চাকে না পেলে, সবাই প্রতিবেশীদেরকে দায়ী করে তার কন্যা শিশু হারানোর জন্য। শিশুর পরিবারের সন্দেহের কারণে প্রতিবেশীদের চারজনকে আটক করে জিজ্ঞাসা করা হয়। অবশেষে শনিবার রাতে নিজ বাড়ির ষ্টিলের আলমিরা থেকে শিশু আতিকা জান্নাতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শিশু হত্যার দায়ে পিতা, দাদা, দাদী ও বাবার মামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
নিজ বাড়ির ষ্টিলের আলমিরা থেকে শিশু আতিকা জান্নাতের লাশ উদ্ধার হওয়ার ঘটনায় ঈশ্বরদীতে চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসি দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ