ঢাকা, বৃহস্পতিবার 25 January 2018, ১২ মাঘ ১৪২৪, ৭ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৩ আর আহত ১২ জনের অবশেষে মূল্য ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা

এফ,এ আলমগীর, চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গায় স্মরণকালের ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের পরিবারের সাথে চালক এবং হেলপারের সামান্য অর্থের বিনিময়ে অবশেষে নি®পত্তি হয়েছে।  দেশব্যাপী আলোচিত দুর্ঘটনার বিষয়টি আপসরফাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে নানামুখি গুঞ্জন। গতবছরের ২৬ মার্চ দামুড়হুদার জয়রামপুরে ঘটেছিলো স্মরণকালের ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনা। একই গ্রামের ১৩ জনের মৃত্যু ও ১২ জন আহতের ঘটনাটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। প্রতিদিনের ন্যায় সেদিনও সকালে আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জের রাস্তাা নির্মাণ কাজের উদ্দ্যেশে ২৪ জন শ্রমিক নিয়ে আলমসাধুযোগে যাবার সময় চুয়াডাঙ্গা-দর্শনা সড়কের জয়রামপুর স্কুল বটতলা নামক স্থানে বিপরীত দিক থেকে সিলেটি বালি ভর্তি দ্রুতগতিতে আসা একটি ট্রাক (চুয়াডাঙ্গা-ট-১১-০৫৮৮) সজোরো মুখোমুখি ধাক্কা দেয়। এতে আলমসাধু দুমড়ে মুচড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ও পিচ রাস্তায় আচড়ে পড়ে ছিন্নভিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ৮ জন। হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় আরও ৫ জন। ঘটনাটি গোটা দেশে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। ঘটনার রাতেই দামুড়হুদা মডেল থানার উপপরিদর্শক মেজবাহুর রহমান বাদী হয়ে ট্রাকচালক রাজিব ও হেলপার জুয়েলকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করে। ঘটনার পর থেকেই রাজিব ও জুয়েল পালাতক ছিল। হতদরিদ্র নিহত ও আহত পরিবারের মধ্যে সাহায্য-সহযোগিতায় এগিয়ে আসে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান, বিত্তবানসহ সরকারি-বেসরকাবি বিভিন্ন সংস্থা।

ঘটনার ৮ মাস পর হেলপার জুয়েল রানা আদালতে আত্মসমর্পণ করে। দীর্ঘ ৮ মাস তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দামুড়হুদা থানার এসআই আমজাদ হোসেন গত ৩০ অক্টোবর রাজিব ও জুয়েলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। চার্জশিট গ্রহণ করে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করলে গত ১৫ জানুয়ারি চালক রাজিবও আদালতে আত্মসমর্পণ করে। আদালত উভয়ের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এ দিকে গত ১৩ জানুয়ারি বিকেলে দর্শনায় দুপক্ষ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে আপস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সে বৈঠকে নিহত ১৩ জনের মধ্যে প্রত্যেক পরিবারকে ১০ হাজার, আহতদের পরিবারকে ৫ হাজার এবং আলমসাধু বাবদ ১৫ হাজার টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়। সর্বমোট ২ লাখ ৩০ হাজার টাকায় স্মরণকালের ভয়াবহ দুর্ঘটনা আপস সিদ্ধান্ত গ্রহণ অনেকের কাছেই হয়েছে প্রশ্নবিদ্ধ। মঙ্গলবার আপসনামা দুপক্ষের আইনজীবীর হাতে তুলে দেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ