ঢাকা, বৃহস্পতিবার 25 January 2018, ১২ মাঘ ১৪২৪, ৭ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আদালতে খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার: ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুবার্ষিকীর দিনেও জিয়া অরফানেজ ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দিতে বিশেষ আদালতে উপস্থিত হন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। গতকাল বুধবার বেলা ১১টা ৫৪ মিনিটে রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে তিনি উপস্থিত হন।
এর আগে মঙ্গলবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের পক্ষে চতুর্থ দিনের মতো যুক্তি উপস্থাপন করেছেন আইনজীবী আহসান উল্লাহ। যুক্তি উপস্থাপন শেষে খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বিচারককে বলেন, বুধবার ম্যাডামের ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী। কিছু ধর্মীয় কাজ থাকে। তাই বুধবার জন্য কোর্টের কার্যক্রম স্থগিত করলে ভালো হয়। বিচারক বললেন, ম্যাডাম বুধবার পর্যন্ত দুই মামলায় জামিনে থাকবেন। অন্য আসামিদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন চলছে। ম্যাডামের আসার দরকার নেই। যেহেতু আদালত মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেননি তাই বেগম জিয়া ছেলের মৃত্যুর দিনেও আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
শরফুদ্দিননের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয় ১৬ জানুয়ারি। এরপর যুক্তি শেষ না হওয়ায় ১৭, ১৮, ২৩ জানুয়ারি যুক্তি উপস্থাপন করেন তার আইনজীবী। এর আগে ১৯ ডিসেম্বর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয়। এদিন রাষ্ট্রপক্ষ খালেদা জিয়াসহ সব আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি চেয়ে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন। ২০ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয়। এরপর ২১, ২৬, ২৭ ও ২৮ ডিসেম্বর এবং ৩, ৪, ১০, ১১ ও ১৬ জানুয়ারি খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন তার আইনজীবীরা।
ইদকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আসামি পক্ষের পরবর্তী যুক্তি উপস্থাপনের জন্য আজ বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেছেন আদালত। গতকাল আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে এ মামলার অন্যতম আসামি ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের পক্ষে পঞ্চম দিনের মতো যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন তার আইনজীবী আহসান উল্লাহ। দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটে তার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন। এরপর মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামালের পক্ষে আহসান উল্লাহ যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন। কিন্তু তার পক্ষে আজ যুক্তি উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় পরবর্তী যুক্তি উপস্থাপনের জন্য বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেন। এর আগে মঙ্গলবার চতুর্থ দিনের মতো ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন তার আইনজীবী। শরফুদ্দিনের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয় ১৬ জানুয়ারি।
নিন্দা ও প্রতিবাদ: এদিকে একবিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, গতকাল মিথ্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া আদালতে হাজিরা দিতে গেলে তাকে অভ্যর্থনা জানাতে আসা নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ হামলা চালায় এবং অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার করা হয়েছে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র সহ-সভাপতি ও ঢাকা মহানগর কৃষক দলের সদস্য সচিব এল রহমান, বিএনপি নেতা মোঃ মানিকসহ ৬ জনের অধিক নেতাকর্মীকে। নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশী হামলা ও গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, একদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও তিন বারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় সপ্তাহে কয়েকদিন যেমন আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে, তেমনিভাবে দেশনেত্রীর হাজিরার প্রতিটি দিনেই তাকে অভ্যর্থনা জানাতে জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের ওপর ন্যাক্কারজনক হামলা চালানো হচ্ছে, গ্রেফতার করা হচ্ছে। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার তাদের প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে বিএনপিকে ধ্বংসের ব্যর্থ প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। কিন্তু এসব অপকর্ম ও নির্যাতন-নিপীড়ণ চালিয়ে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নির্মূল করা কখনোই সম্ভব নয়। বিএনপি মহাসচিব গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে তাদের নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ