ঢাকা, শনিবার 3 February 2018, ২১ মাঘ ১৪২৪, ১৬ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

হংকংয়ে আবারও ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের অবিস্ফোরিত বোম

২ ফেব্রুয়ারি, বিবিসি :  হংকংয়ের ব্যস্ত বাণিজ্যিক এলাকার একটি নির্মাণক্ষেত্র থেকে উদ্ধার সাড়ে চারশ কেজি ওজনের একটি বোমা নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে। এটি এক সপ্তাহের কম সময়ে বাণিজ্যিক নগরী হংকংয়ে পাওয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের অবিস্ফোরিত দ্বিতীয় বোমা।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানি বাহিনীর দখলে থাকা হংকং পোতাশ্রয় লক্ষ্য করে মিত্র বাহিনী এ ধরণের অসংখ্য বোমা ছুড়ে ছিল বলে জানায় ।ওয়ান চাই জেলার একটি নির্মাণক্ষেত্রে বুধবার সর্বশেষ বোমাটি পাওয়া যায়। ২৪ ঘণ্টার চেষ্টার পর বৃহস্পতিবার সকালে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ ইউনিট ‘এএনএম সিক্সটি ফাইভ’ নামের অবিস্ফোরিত বোমাটিকে নিরাপদে সরিয়ে নিতে সক্ষম হয়।বোমাটি নিষ্ক্রিয় করার সময় সতর্কতা হিসেবে বাণিজ্যিক এলাকাটির আশপাশ থেকে প্রায় চার হাজার লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সড়কে যান চলাচলও বন্ধ করে দেওয়া হয়। ভিক্টোরিয়া হারবারের ফেরি চলাচলও বন্ধ ছিল।দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শুরুতে হংকং ব্রিটিশ কলোনি ছিল। কিন্তু ১৯৪১ সালে জাপানি বাহিনী হংকংয়ের দখল নেয় এবং ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত এটি জাপানের দখলেই ছিল। ব্রিটিশ ও মিত্র বাহিনীর সৈন্যরা মরিয়া হয়ে হংকং পুনঃদখলের লড়াই করে।গত শনিবার একই এলাকা থেকে হুবহু একই রকম দেখতে আরেকটি বোমা উদ্ধারের পর সেটি নিস্ক্রিয় করা হয়েছিল।তবে বুধবার উদ্ধার করা বোমাটির নিষ্ক্রিয়করণ প্যানেল ‘মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত’ থাকায় এর নিষ্ক্রিয়করণ কাজ ভীষণ ঝুঁকিপূর্ণ ছিল বলে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টকে জানান নিষ্ক্রিয়করণ কর্মকর্তা অ্যালিক ম্যাকহোয়াইরটার।তিনি বলেন, “বোমা নিষ্ক্রিয়করণ কার্যক্রম নোংরা, কঠিন ও বিপজ্জনক। বিশেষ করে এই বোমাটির ক্ষেত্রে তিনটি কথাই ছিল সত্য। নিষ্ক্রিয়করণের কাজে যেসব কর্মকর্তারা ছিলেন তাদের জন্য এটা ছিল ভয়াবহ বিপজ্জনক।”পুরো কাজ শেষ হতে ২৪ ঘণ্টার মত সময় লাগে বলেও জানান তিনি।বোমাটি সরিয়ে নেওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে আশপাশের ভবনগুলো খুলে দেওয়া হয়; সন্ধ্যার দিকে সড়কের অবরোধও তুলে নেওয়া হয়।ইতিহাসবিদ জেসন ওর্ডি জানান, এই সপ্তাহে যে এলাকাতে বোমা দুটি পাওয়া গেছে, যুদ্ধের সময় সেটি পোতাশ্রয় ছিল, ভূমি সংস্কারের পর যা অনেকখানি দূরে সরে গেছে।জাপানের দখলদারিত্বের সময় জাহাজ মেরামত সুবিধার কারণে ভৌগলিক দিকে দিয়ে হংকং গুরুত্বপূর্ণ ছিল। যে কারণে জাপানি বাহিনীকে দুর্বল করতে মিত্র বাহিনী সেখানে অসংখ্য বোমা ছোড়ে।”এলাকাটিতে এ ধরণের আরও বোমা পাওয়া যেতে পারে বলেও ধারণা প্রকাশ করেন তিনি।হংকং থেকে উদ্ধার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের অবিস্ফোরিত সবচেয়ে বড় বোমার ওজন ছিল ৯০৭ কেজি; ২০১৪ সালে যেটি নিস্ক্রিয় করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ