ঢাকা, সোমবার 5 February 2018, ২৩ মাঘ ১৪২৪, ১৮ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রায় একশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে খুলনা বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল নির্মিত হচ্ছে

খুলনা অফিস: খুলনার ডুমুরিয়ার চকমাথুরাবাদ ও বটিয়াঘাটার কৃষ্ণনগর মৌজার রূপসা বাইপাস রোড সংলগ্ন (ময়ূরী প্রকল্পের বিপরীতে) পাঁচ একর জমির উপর প্রায় একশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্রুত খুলনা বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল।
বর্তমানে জমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। আগামী ২০২২ সালের মধ্যেই এ প্রকল্প সমাপ্ত হবে। অবশ্য সিভিল সার্জন বলছেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে শিশু মৃত্যুহার অনেকাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।   
গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ২০১২ সালে খুলনায় একটি বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়।
উদ্যোগটি বাস্তবায়নে গণপূর্ত বিভাগ-১ খুলনা বিভাগীয় কমিশনার অফিসের পূর্বদিকে চার একর জমির উপর এটি বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের আপত্তির মুখে এ প্রকল্প থেমে যায়।
জানা গেছে, সম্প্রতি ফের আরেকটি প্রকল্পের আওতায় ডুমুরিয়ার চকমাথুরাবাদ ও বটিয়াঘাটার কৃঞ্চনগর মৌজায় রূপসা বাইপাস সড়কের পাশে পাঁচ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত হতে যাচ্ছে খুলনা বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল। অন্তত একশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে আগামী ২০২২ সালের মধ্যেই এ প্রকল্প সমাপ্ত হবে।
প্রকল্পের আওতায় ১০তলা বিশিষ্ট হাসপাতাল, আবাসিক ভবন ও একটি বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমান জমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
খুলনা গণপূর্ত-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে ৩০ কোটি টাকা পাওয়া গেছে। জেলা প্রশাসনের জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।
আগামী মার্চ মাসে অবকাঠামো নির্মাণে টেন্ডার আহ্বান করা হবে। ২০২২ সালের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ করা হবে।
খুলনা সিভিল সার্জন ডা. এএসএম আব্দুল রাজ্জাক বলেন, দেশের আট বিভাগে সরকার বিভাগীয় হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। এর আওতায় খুলনাতেও এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রকল্পটি সঠিক সময়ের মধ্যে বাস্তবায়নের পরিকল্পনা রয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে শিশু ও নবজাতকের মৃত্যুর হার কমবে। পাশাপাশি বিভিন্ন জটিল রোগের উন্নতমানের সেবা প্রদান করা সম্ভব হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ