ঢাকা, সোমবার 5 February 2018, ২৩ মাঘ ১৪২৪, ১৮ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নীলফামারীতে মন্দিরের জমি বেদখল

নীলফামারী সংবাদদাতা: নীলফামারীতে প্রভাবশালী কর্তৃক হরিসভা ও কালী মন্দিরের ঘরের জমি অবৈধভাবে জবর দখলে নেয়ায় তা উদ্ধারের জন্য ভুমি মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে আবেদন করেছে অসহায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভুক্তভোগী। মন্দিরের জমি উদ্ধারে স্থানীয় উপজেলা ও জেলা প্রশাসনে দফায় দফায় আবেদন করেও কোন সুরাহা না পেয়ে এবার মন্ত্রীর সহায়তা কামনা করেছে তারা। উপজেলা প্রশাসনে মন্দির ও তার জমি উদ্ধারে আবেদনের প্রেক্ষিতে ইউনিয়ন তহশীলদার কতৃক প্রভাবশালীদের ফরমায়েশী তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ও তার পুনঃ তদন্তের আবেদন করা হলেও টনক নড়েনি স্থানীয় প্রশাসনের। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে জেলার ডোমার উপজেলার মৌজা পাঙ্গা গ্রামে। জানা যায়, ওই এলাকায় স্থানীয় হরিসভা ও কালী মন্দিরের নামে ০১/০৩/১৯৩৭ সালেল ৪১২ নং দলিলমূলে ৩০ একর ৪৬ শতাংশ দেবোত্তর জমি রয়েছে। ওই জমির ৪৫৪৫ ও ৪৩৪৩ নং দাগে ৪৯ শতাংশ জমির উপরে হরিসভা মন্দির ও কালী মন্দিরটি অবস্থিত। ওই মন্দিরকে কেন্দ্র করে জমির তত্বাবধান সহ বিভিন্ন পুজা পার্বন সহ এলাকায় নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্টান পালিত হয়ে আসছিল। বর্তমানে কতিপয় প্রভাবশালী উক্ত ধর্মশালায় পুজা পার্বনে বাধা দিয়ে প্রাচীন ওই দেব মন্দির জবর দখল করে ঘরদোর তুলে। ধর্মের প্রতি আঘাত হানিতে ও খুন জখম করতে প্রভাবশালীগন একমত বলে অভিযোগে প্রকাশ। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের কাছে কোন প্রকার আইনী ব্যবস্থা না পাওয়ায় ওই মন্দিরের সেবায়েতের বর্তমান প্রজন্ম বুদাউ বর্মন ভুমিমন্ত্রী বরাবর আবেদন করেন। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অসহায় লোকজন সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষের সহায়তা কামনা করছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ