ঢাকা, বৃহস্পতিবার 8 February 2018, ২৬ মাঘ ১৪২৪, ২১ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চবি প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের

চট্টগ্রাম অফিস : গত রোববার দুপুরে চারদফা দাবিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা।এ কর্মসূচির সময় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে অবশেষে তালা খুলে দেন তারা।
শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো- তিনদিনের মধ্যে দ্বিতীয় বর্ষ ও চতুর্থ বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করতে হবে, সঠিক সময়ে প্রতিটি বর্ষের পরীক্ষা শুরু ও শেষ করতে হবে, শিক্ষকদের ব্যক্তিগত ব্যস্ততায় যেন নিয়মিত ক্লাস ব্যাহত না হয় এবং বারবার আশ্বাস না দিয়ে ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।
 শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, গত নয় মাস ধরে চতুর্থ বর্ষ এবং এক বছর ধরে দ্বিতীয় বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে না। পাশাপাশি শিক্ষকদের ব্যক্তিগত ব্যস্ততা এবং তীব্র অন্তঃকোন্দলের কারণে নিয়মিত ক্লাস ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া গত ২০ নভেম্বর উপাচার্য সাত দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করতে নির্দেশ দিলেও এখনো প্রকাশ করা হয়নি বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন ।
শিক্ষার্থীরা বলেন,আমাদের শিক্ষাজীবন থেকে হারিয়ে যাওয়া দুই বছর ফিরিয়ে দিন।একই সেশনের বন্ধুরা বিভিন্ন বিভাগ থেকে পাশ করে বের হয়ে চাকরি করছে।
আমাদের কি দোষ? কি কারণে আমাদের পরীক্ষার ফলাফল দিতে দেরি হচ্ছে? আমরা এর কারণ জানতে চাই। পরীক্ষার ফলাফল দিতে দেরি হওয়ায় আমরা কোন চাকরিতে আবেদন করতে পারি না। কেন আমাদের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে?
 প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চার দফা দাবিতে দুপুর সাড়ে ১১টায় প্রাণিবিদ্যা বিভাগের মূল ফটকে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিভাগটির কয়েকশ’ শিক্ষার্থী।
এ সময় শির্ক্ষাথীরা বিভাগের সভাপতিসহ অন্যান্য শিক্ষকদের বেশ কিছুক্ষণ অবরুদ্ধ করে রাখেন তারা। খবর পেয়ে বিভাগে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা করে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশে দ্রুত উদ্যোগ নেয়ার আশ্বাস দেয় প্রক্টরিয়াল বডি। আশ্বাস পেয়ে শিক্ষার্থীরা তালা খুলে দেন।
বিভাগের চেয়ারম্যান ড গাজী সৈয়দ মোহাম্মদ আসমত গনমাধ্যমকে বলেন,আমরা বিষয়টি উপাচার্যের সাথে আলোচনা করছি। যত দ্রুত সম্ভব পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে।
চবির সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র বলেন, ফলাফল প্রকাশের দাবিতে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থীরা তালা লাগিয়েছিল।
এসময় বিভাগের শিক্ষকরাও সেখানে আটকা পড়ে। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তালা খুলে শিক্ষকদের উদ্ধার করি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ