ঢাকা, বুধবার 7 February 2018, ২৫ মাঘ ১৪২৪, ২০ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাথায় কাফনের কাপড় বেঁধে রাজপথে অবস্থান নেবে ছাত্র-যুব-স্বেচ্ছাসেবক দল

খুলনা অফিস : বিএনপির চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বানোয়াট মামলায় অন্যায় ভাবে সাজা দেয়া হলে মেনে নেবে না খুলনার ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল। রাজপথে হাজার হাজার নেতাকর্মীর দৃঢ় অবস্থান থেকে সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে নি¤œ আদালতকে ব্যবহার করে করা অন্যায় আচরণের প্রতিবাদ করা হবে। বিএনপির এ তিন অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের কর্মসূচি হবে শান্তিপূর্ণ ও অহিংস। তবে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ধরনের বাধা সৃষ্টি করা হলে, হামলা-লাঠিচার্জ করা হলে, গণগ্রেফতার করা হলে, মিথ্যা মামলার প্রহসন করা হলে- জাতীয়তাবাদী আদর্শের পরীক্ষিত সৈনিকেরা গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলবে। প্রয়োজনে মাথায় কাফনের কাপড় বেঁধে জীবনবাজি রেখে রাজপথ দখলে রাখবে তারা। ৮ ফেব্রুয়ারি দুদকের দায়ের করা বানোয়াট রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত মামলার রায়ের দিন নির্ধারিত থাকার প্রেক্ষিতে দেশব্যাপী সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে করণীয় নির্ধারণে মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ে নগর বিএনপির নেতাদের সাথে অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
সভার সভাপতি বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর শাখার সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম বলেন, নির্বাহী কমিটির সভায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যে করণীয় ঘোষণা করা হয়েছে। বিএনপি এবং অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের সর্বোচ্চ সংখ্যক নেতাকর্মী সাধারণ জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে রাজপথে শান্তিপূর্ণ অবস্থান গ্রহণ করবেন।
সভা থেকে বলা হয়, উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনের সাংবিধানিক গণতান্ত্রিক অধিকার পালনে বিএনপি কর্মীরা কোন ধরনের ছাড় দেবে না। সংঘাত নয়, সহিংসতা নয়, বিএনপির কর্মসূচি হবে শতভাগ শান্তিপূর্ণ। তবে পুলিশ প্রশাসনের কাছ থেকে কোন ধরনের অন্যায় আচরণ, কর্মসূচিতে বাধা প্রদান, নির্বিচারে গণগ্রেফতার করা হলে তা প্রতিরোধে দলীয় কর্মীরা তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।
সভা থেকে গত কয়েক দিনে নগরীর বিভিন্ন স্থানে বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি পুলিশের তল্লাশি, গ্রেফতার, মহড়ার নামে ভীতি ছড়ানো, তল্লাশির সময় ঘর তছনছ করা এবং পরিবারের সদস্যদের সাথে দুর্বব্যহারের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। সোমবার রাতে পুলিশ মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক খোরশেদ জাহান রানা, ২৬নং ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুর রহমান এবং দৌলতপুর থানা যুবদল নেতা মিলটনকে গ্রেফতার করেছে। সভা থেকে অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করা হয়।
সভায় উপস্থিত ছিলেন জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, শাহজালাল বাবলু, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মেহেদী হাসান দীপু, মহিবুজ্জামান কচি, শফিকুল আলম তুহিন, শাহিনুল ইসলাম পাখী, আজিজুল হাসান দুলু, মুজিবর রহমান, এহতেশামুল হক শাওন, ইউসুফ হারুন মজনু, একরামুল কবির মিল্টন, একরামুল হক হেলাল, শামসুজ্জামান চঞ্চল, মাহবুব হাসান পিয়ারু, শরিফুল ইসলাম বাবু, হেলাল আহমেদ সুমন, জি এম রফিকুল হাসান, রিয়াজ শাহেদ প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ