ঢাকা, বৃহস্পতিবার 8 February 2018, ২৬ মাঘ ১৪২৪, ২১ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অন্যায়ভাবে শ্রমিক নেতাদের গ্রেফতারে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন

শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন চট্টগ্রাম মহানগরীর সদর সেক্রেটারিকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার ও চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতওয়ালী থানাধীন আলকরন ওয়ার্ডস্থ রেয়াজউদ্দিন বাজার পাখি গলি এলাকা থেকে ২২ জন দোকান কর্মচারী মালিককে  শ্রমিক কল্যাণের সদস্য সন্দেহে  গ্রেফতার ও পরবর্তীতে এক দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুরের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ খান, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন চট্টগ্রাম মহানগরীর সভাপতি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের খান ও সেক্রেটারি এস এম লুৎফর রহমান।
 গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মো. আলমগীর বাদশা, মো. রিদওয়ান, মো. শাকিল, নেজাম উদ্দিন, মো. সোহেল, মো. ওসমান, মো. আরিফ, মো. আরাফাত, মো. তোফায়েল, মো. ইমরান, মো. আরমান ও মো. নবী হোসেন।
গতকাল বুধবার দেয়া বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ রেয়াজউদ্দিন বাজার পাখি গলির একতা সু স্টোর বন্ধ করার প্রাক্কালে নিরীহ দোকান মালিক ও কর্মচারীদের গ্রেফতার করা এবং শ্রমিক কল্যাণের গোপন বৈঠকের নামে কিছু কিছু পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
এক যৌথ প্রতিবাদ বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, একই দোকানের মালিক ও কর্মচারীদের কর্মরত অবস্থায় মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা উদ্দ্যোশমূলক ও অনৈতিক ষড়যন্ত্রের অংশ। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নিরীহ দোকান কর্মচারী ও মালিককে মুক্তি দেয়ার জোর দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ জোর দিয়ে বলেন, এভাবে বিনা অযুহাতে ব্যবসায়ী ও কর্মচারীদেরকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গ্রেফতার এবং মিথ্যা মামলা দেয়া অনৈতিক, অবিচার ও মানবাধিকারের চরম লঙ্গন। নেতৃবৃন্দ বলেন শ্রমিক কল্যাণ একটি বৈধ রেজি: সংগঠন গোপন বৈঠকের প্রশ্নই  আসে না। শ্রমিক কল্যাণ সরকারি বিধি-নীতিমালার আলোকে শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। শ্রমিকদের নিয়ে সরকার অনুমোদিত একটি সংগঠনের নামে গোপন বৈঠক করছে মর্মে কিছু কিছু পত্রিকা সংবাদ পরিবেশন করেছে আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং এ জাতীয় সংবাদ পরিবেশন করা থেকে সকলকে বিরত থাকার জন্য সবার প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ