ঢাকা, বৃহস্পতিবার 8 February 2018, ২৬ মাঘ ১৪২৪, ২১ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মহাসড়কে র‌্যাবের মহড়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : বিএনপির চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার আশংকায় গতকাল বুধবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল বিশ্বরোড এলাকায় মহড়া দিয়েছে র‌্যাব সদস্যরা।
গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা গাড়ীবহর নিয়ে সরাইলের বিশ্বরোড এলাকায় ফাহাদ ফিলিং স্টেশনের সামনে অল্প কিছুক্ষণ অবস্থান করে। এসময় তারা দূর পাল¬ার বিভিন্ন যানবাহনে তল¬াশী চালায়। মহড়া সম্পর্কে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক র‌্যাবের একজন কর্মকর্তা বলেন, অপরাধীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে তারা এই মহড়ার আয়োজন করেছেন। এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায়ের বিষয়টিও তারা মাথায় রেখেছেন।
সরাইলে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে এক সন্তানের জননী, রফিয়া বেগম-(২০) নামে এক গৃহবধূকে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন বেদম মারধোর করে খুন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার সদর ইউনিয়নের নিজসরাইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।
নিহত রফিয়া বেগম নিজ সরাইল গ্রামের ফারুক মিয়া-(২৯) এর স্ত্রী এবং একই গ্রামের মমিন মিয়ার মেয়ে। ঘটনার পর পরই স্বামী ফারুক মিয়াসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়।
পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ বছর আগে সরাইল উপজেলা সদরের নিজ সরাইল গ্রামের মজলক মিয়ার ছেলে ফারুক মিয়ার সাথে একই গ্রামের মমিন মিয়ার মেয়ে রফিয়া বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রফিয়ার পিতা ফারুক মিয়াকে নগদ ১ লাখ টাকা ও একভরি স্বর্ণালঙ্কার যৌতুক দেয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের রয়েছে রাফি নামের তিন বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।
বিয়ের পর থেকেই অভাব-অনটন নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। সংসারের বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে মঙ্গলবারও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এ সময় রফিয়াকে বেদম মারধোর করে ফারুক ও তার পরিবারের লোকজন। বিকেল পাঁচটার দিকে তাদের শিশুপুত্র রাফির চিৎকারে প্রতিবেশীরা তাদের ঘরে প্রবেশ করে দু’পা বাঁধা অবস্থায় রফিয়ার লাশ ঘরে পড়ে আছে। বাড়ির লোকজন পালিয়ে গেছে। খবর পেয়ে প্রতিবেশীরা রফিয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
রফিয়া বেগমের মা মেহেরছান অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়ে রফিয়াকে হাত-পা রশি দিয়ে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করেছে ফারুক ও তার পরিবারের লোকজন। রাফিয়ার শিশুপুত্র রাফি বলেন, তার মাকে তার বাবা ও ফুফু পিটিয়ে হত্যা করেছে। এ ব্যাপারে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক একেএম মুস্তাকিব বিল্লাহ বলেন, হাসপাতালে আনার এক-দেড় ঘন্টা আগেই গৃহবধূ রফিয়ার মৃত্যু হয়েছে। গৃহবধূর গলায়, চোখে ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ