ঢাকা, বৃহস্পতিবার 8 February 2018, ২৬ মাঘ ১৪২৪, ২১ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

‘উত্তর প্রদেশে মুসলমানদের ওপর নির্যাতন করা হচ্ছে’ -মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ

৭ ফেব্রুয়ারি, পার্স টুডে : মঙ্গলবার রেডিও তেহরানকে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় পশ্চিমবঙ্গের গ্রন্থাগার ও জনশিক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘সংবিধানে বাক স্বাধীনতার অধিকার দেয়ার পাশাপাশি সংযত থাকার কথা বলা হয়েছে। কেউ যদি দায়িত্বহীনতার পরিচয় দেয় সেজন্য আইনের বিচার আছে। দাঙ্গার জন্য প্ররোচনা দিলে তারও শাস্তি আছে। আসলে ওখানে (উত্তর প্রদেশে) ‘ গেরুয়া শাসন’ চলছে তো, তারা ইস্যু খুঁজছে, মুসলিম নিধন ও তাদের কষ্ট দেয়ার জন্য আবহাওয়া তৈরি করছে। এটা হল মূল ঘটনা। মুসলিমরা ওখানে সংযত অবস্থায় আছে এবং থাকবে। উত্তপ্ত করলে ওদের পোয়া বারো, পুলিশ সুযোগ পাবে, এনকাউন্টার করবে, পেটাবে, টেনে নিয়ে যাবে, এসব হবে।’
গত ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও বিদ্যার্থী পরিষদের সদস্যরা কাসগঞ্জে মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় মোটরবাইকে তিরঙ্গা পতাকা নিয়ে মিছিল করে উত্তেজক স্লোগান দেয়। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে বচসার মধ্যে সংঘর্ষে চন্দন গুপ্তা নামে এক তরুণ নিহত ও নওশাদ নামে এক ব্যক্তি আহত হন।
ওই ঘটনার পর সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর এবং পরবর্তীতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। সহিংসতার কারণে সেখানে ধর্মীয় স্থানও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসনকে কারফিউ জারি করাসহ র‌্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স ও পিএসি বাহিনী মোতায়েন করতে হয়।
অন্যদিকে ভারতের বিজেপি শাসিত উত্তর প্রদেশে মুসলিমদের ওপরে অত্যাচার করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সমাজবাদী পার্টির মহাসচিব রামগোপাল যাদব। তিনি গত মঙ্গলবার ওই মন্তব্য করেছেন। উত্তর প্রদেশের কাসগঞ্জের সাম্প্রাতিক দাঙ্গার ঘটনার উল্লেখ করে রামগোপাল যাদব বলেন, ’২৬ জানুয়ারির সহিংসতায় চন্দন গুপ্তার প্রাণ নিয়েছে হিন্দুরাই, কিন্তু অত্যাচার হচ্ছে মুসলিমদের ওপরে। তার দল এটা বরদাস্ত করবে না।
রামগোপাল যাদব বলেন, ‘মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় যেয়ে যদি ‘মুসলমানদের জন্য দু’টি স্থান, পাকিস্তান ও কবরস্থান’ স্লোগান দেয়া হয় তাহলে কোনো মানুষ তা শুনতে পারে না। যেখানে তিরঙ্গা পতাকা লাগানো হয়েছিল সেখানে হিন্দু বাহিনী তাদের পতাকা লাগাতে চেয়েছিল। এ নিয়ে বচসার পর সেখানে গুলী চলে। চন্দন গুপ্তাকে গুলী করে হত্যাকারী হিন্দুই ছিল। কিন্তু মুসলিমদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আরোপ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সমস্ত ভাইরাল ভিডিওতে তা সকলেই দেখেছে।’
উত্তর প্রদেশে পুলিশি এনকাউন্টার প্রসঙ্গে রামগোপাল যাদব বলেন, ‘এনকাউন্টারও বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষদের ওপরে করা হচ্ছে এবং ভুয়া এনকাউন্টার করা হচ্ছে। আমরা মুসলিমদের ওপরে অন্যায় হতে দেবো না। কেউ ক্ষুব্ধ হয়ে যাবে সেজন্য আমরা বিরোধিতা করব না, এমন নয়। হিন্দু হোক বা মুসলিম যারাই অন্যায় করুক না কেন, আমরা অন্যায় করব না।’ তিনি বলেন, ‘জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই গেরুয়াধারীরা মিছিল বের করেছিলেন। নির্বাচনের আগে বিজেপি ইচ্ছাকৃত সাম্প্রদায়িক লাইনে মানুষকে বিভক্ত করার চেষ্টা চালাবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ