ঢাকা, শুক্রবার 9 February 2018, ২৭ মাঘ ১৪২৪, ২২ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দক্ষিণ সুদানে মুক্তি পেয়েছে ৩০০ শিশুসেনা-জাতিসংঘ

৮ ফেব্রুয়ারি, এএফপি : দক্ষিণ সুদানের সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো ৩০০ জনেরও বেশি শিশু সেনাকে মুক্তি দিয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। দেশটিতে জাতিসংঘ মিশন জানায়, ৮৭ জন মেয়েশিশু সহ মোট ৩১১ জন শিশুযোদ্ধাকে মুক্তি দিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠী। মিশনের প্রধান ডেভিড শেয়ারার বলেন, শিশুদের হাতে অস্ত্র থাকা উচিত নয়। তারা একে অপরকে হতা করতে পারে না। তাদের এখন খেলার বয়স। শেখার বয়স।

ইয়াম্বিও শহরে এক অনুষ্ঠানে শিশুদের মুক্তি দেওয়া হয়। শেয়ারার বলেন, প্রথমবারের মতো যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশটিতে এতগুলো মেয়েশিশু মুক্তি পেল।

তিনি বলেন, ‘তারা সেখানে থাকলে যৌন নিপীড়নের শিকার হতো, অনেক দুর্ভোগ নেমে আসতো। তাদের এখন পরিবারের কাছে ও সমাজের কাছে ফিরে যেতে হবে। এবং তাদের সাদরে গ্রহণ করা জরুরি।’

জাতিসংঘের মতে, সাউথ সুদান লিবারেশ মুভমেন্ট ৫৬৩জন শিশু সেনাকে নিয়োগ দিয়েছে। আর তাদের বিরোধী পক্ষ সুদান পিপলস লিবারেশ আর্মিতে রয়েছে ১৩৭ জন শিশু যোদ্ধা।

ইউনিসেফ এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুদ্ধের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আফ্রিকান অঞ্চলের শিশুরা। ২০১৭ সালে নাইজেরিয়া, শাদ, নাইজার এবং ক্যামেরুনে অন্তত ১৩৫ জন শিশুকে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালাতে বাধ্য করা হয়েছে। এ সংখ্যা আগের বছরের চেয়ে ৫ গুণ বেশি। ২০১৩ সালে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শিশুদের ধর্ষণ করা হচ্ছে, হত্যা করা হচ্ছে এবং জোরপূর্বক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। ২০১৭ সালের প্রথম দশ মাসে সোমালিয়ায় প্রায় ১৮০০ শিশুকে যুদ্ধ করার জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ২০১৩ সাল থেকে দক্ষিণ সুদানের সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো ১৯ হাজারেরও বেশি শিশুকে নিয়োগ দিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ