ঢাকা, শনিবার 10 February 2018, ২৮ মাঘ ১৪২৪, ২৩ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শীঘ্রই কমছে না চালের দাম

 

স্টাফ রিপোর্টার : গত ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে অস্থিতিশীল দেশের চালের বাজার। ১ টাকা, ২ টাকা করে বাড়তে বাড়তে চালের দাম এখন প্রায় ক্রেতাদের নাগালের বাইরে। ব্যবসায়ীদের মতে, দাম কমার জন্য ক্রেতাদের অপেক্ষা করতে হবে আগামী বোরো মওসুম পর্যন্ত। এদিকে সবজির দাম কিছুটা কমলেও আবারো বেড়েছে রসুনের দাম। গত সপ্তাহ থেকে রসুনের দাম বাড়তে শুরু করেছে।

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর মোহাম্মদপুর, শান্তিনগর, হাতিরপুল কারওয়ানবাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহের দামেই বিক্রি হচ্ছে বেশিরভাগ চাল।

মোটা স্বর্ণা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকা, বিআর২৮- ৪৮ থেকে ৫৫ টাকা, মিনিকেট (ভালো) ৬২ টাকা, মিনিকেট (নরমাল) ৫৫ থেকে ৫৮ টাকা, নাজিরশাইল গুণগত মানভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা, পাইজাম ৪৬ টাকা এবং পোলাও এর চাল ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

চাল ব্যবসায়ী আরমান জানান, খুব তাড়াতাড়ি চালের দাম কমার সম্ভবনা নেই। চালের দাম কমার জন্য অপেক্ষা করতে হবে দেশে উৎপাদিত নতুন চাল বাজারে আসা পর্যন্ত।

বাংলা বৈশাখ মাসের শুরু বা ইংরেজি এপ্রিল মাসের মাঝখান দিয়ে বাজারে আসতে শুরু করবে বোরো মওসুমের চাল।

এদিকে আস্তে আস্তে কমতে শুরু করেছে সব ধরনের সবজির দাম। বেশ কয়েক সপ্তাহ আমদানি কম থাকায় সবজির দাম চড়া ছিল । ব্যবসায়ীদের মতে, শীত কিছুটা কমে আসায় উৎপাদন বেড়েছে; ফলে দামও কমেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ফুলকপি আকারভেদে ২০ থেকে ৩০ টাকা, শসা ৪০-৪৫ টাকা, পেপে ২৫ টাকা, সিম ৪০-৫০ টাকা, বেগুন (কালো) ৩০-৪০, বেগুন (সাদা) ৪০-৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫৫ থেকে ৬৫ টাকা, করলা ৬০ থেকে ৭৫ টাকা এবং মটরশুটি ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে গত সপ্তাহের সাথে মিল রেখেই আলু বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা দরে।

এদিকে মসলা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দেশী ছোট পেঁয়াজ ও ভারত থেকে আমদানিকরা বড় পেঁয়াজ আজ বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৫০ থেকে ৫৫ টাকা দরে। এছাড়া আদা ১০০ থেকে ১২০ টাকা, মরিচ ১০০ থেকে ১২০ টাকা এবং রসুন বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকা কেজি দরে। এদিকে মশুরের ডাল কেজিপ্রতি ৮৫ থেকে ১১০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে ।

এদিকে আকার ভেদে প্রতি কেজি রুই মাছ ২০০-২৫০ টাকা, কাতলা ২৫০-৩০০ টাকা, চিংড়ী ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আকারভেদে প্রতিটি ইলিশ বিক্রি ৪০০ থেকে ৮০০ টাকা পর্যন্ত।

গোশতের বাজরে তেমন পার্থক্য দেখা যায়নি আগের সপ্তাহের সঙ্গে। গরুর গোশত ৪৮০ টাকা, খাসির গোশত ৭৫০ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা এবং পাকিস্তানী লাল মুরগি ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ