ঢাকা, রোববার 11 February 2018, ২৯ মাঘ ১৪২৪, ২৪ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশকে ২১৫ রানে হারিয়ে সিরিজ জিতল শ্রীলংকা

রফিকুল ইসলাম মিঞা : আড়াই দিনেই শেষ হলো ঢাকা টেস্ট। আর বাংলাদেশকে ২১৫ রানে হারিয়ে ১-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজও জিতে নিয়েছে শ্রীলংকা। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ ড্র করে ঢাকা টেস্ট নিয়ে ভালো কিছু করার স্বপ্ন দেখেছিল। কিন্তু সে স্বপ্ন শেষ পর্যন্ত পূরণ হয়নি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায়। ফলে ঢাকা টেস্টে অসহায় আত্মসমর্পণ করে শ্রীলংকার কাছে টেস্টে হারতে হয়েছে ২১৫ রানের বিশাল ব্যবধানে। লংকানদের বড় জয়ের পথে কোনও প্রতিরোধই গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। এর আগে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে ফাইনালে বাংলাদেশকে হারিয়ে সিরিজ জিতেছিল লংকানরা। বিজয়ী দলের পক্ষে ম্যাচ ও সিরিজ সেরার পুরস্কার পান রোশেন সিলভার।
ঢাকা টেস্টে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংসে ২২২ রান করেছিল শ্রীলংকা। জবাবে বাংলাদেশ ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংসে অলআউট হয় ১১০ রানে। ফলে প্রথম ইনিংসে ১১২ রানে লিড পেয়ে এগিয়ে যায় লংকানরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শ্রীলংকা ২২৬ রান করলে বাংলাদেশের সামনে জয়ের জন্য টার্গেট দাঁড়ায় বিশাল ৩৩৯ রান। টেস্টে এতো রান করে জয়ের রেকর্ড নেই বাংলাদেশের। ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামার আগে পরাজয় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায় বাংলাদেশের। তবে টেস্টটা চতুর্থ দিনে নিয়ে যাওয়া আর পরাজয়ের ব্যবধানটা কমাতে পারত বাংলাদেশ। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সেটাও পারেনি বাংলাদেশ। ৩৩৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে টাইগাররা অলআউট হয়েছে ১২৩ রানে। ফলে ২১৫ রানে জয় পায় শ্রীলংকা। দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের পক্ষে কোন ব্যাটসম্যানই ভালো করতে পারেনি। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৩ রান এসেছে মুমিনুলের ব্যাট থেকে। এছাড়া মুশফিক ২৫ রান, ইমরুল ১৭ রান আর লিটন দাস ১১ রান করলেও দলের পক্ষে অন্যসব ব্যাটসম্যানের রান ছিল একক ফিগারে। লংকান বোলর আকিলা ধনঞ্জয়া ও রঙ্গনা হেরাথের বোলিংয়েই দ্বিতীয় ইনিংসে বড় স্কোর গড়তে পারেনি স্বাগতিকরা। ধনাঞ্জয়া ২৪ রানে ৫টি ও হেরাথ ৪৯ রানে ৪ উইকেট তুলে নিলে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয় মাত্র ২৯.৩ ওভারে ১২৬ রানে। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ৩ রানে শেষ ৫ উইকেট হারিয়ে অলআউট হয়েছিল ১১০ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৩ রানে হারাল শেষ ৬ উইকেট। গতকাল শ্রীলংকাকে ২২৬ রানে অলআউট করে ৩৩৯ রানের কঠিন টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওপেনার তামিম ইকবাল মাত্র ২ রানে আউট হলে প্রথমেই কঠিন হয়ে পড়ে বাংলাদেশের টিকে থাকার পথ। প্রথম ইনিংসে একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি তামিম। আউট হয়েছিলেন মাত্র ৪ রানে। ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে এই ওপেনারের কাছে প্রত্যাশা ছিল একটু বেশিই। কিন্তু প্রত্যাশাটা একেবারেই মেটাতে পারেননি তামিম। দিলরুয়ান পেরেরার বলে এলবি আউটের ফাঁদে পড়ে বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার আগে করেন মাত্র ২ রান। তামিম আউট হলেও মুমিনুল, ইমরুল মুশফিক আর লিটন দাস টিকে থেকে দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু মিডল ও লোয়ার মিডল অর্ডার যেভাবে ধসে পড়েছে, তাতে ১২৩ রানে অলআউট হওয়া ছাড়া আর কি করা যেতে পারত। আবার মাহমুউল্লাহর  আউটের পর তছনছ হয়ে যায় সব। ওই সময় মাত্র ৪ রান তুলতে বাংলাদেশ হারায় ৪ উইকেট, যেখানে রিয়াদ ৬ রান, মুশফিকুর রহিম ২৫ রান, সাব্বির রহমান  ১ রান ও আব্দুর রাজ্জাক করেন ২ রান। দলীয় ৩ রানে তামিম আউট হওয়ার পর ইমরুল আর মুমিনুল মিলে দলকে ৪৯ রানে নিয়ে যায়। তবে ইমরুলের বিদায়ে এই জুটিটা না ভাংগে আরো কিছু রান যোগ হতে পারত। আউট হয়ার আগে ইমরুল করেন ১৭ রান। ইমরুলের বিদায়ে দলকে এগিয়ে নেয়ার টেস্টা করেন মুমিনুল-মুশফিক জুিট। এই জুটি ভাংগে দলীয় ৬৪ রানে। আউট হওয়ার আগে মুমিনুল করেন দলের পক্ষে ৪৭ বলে সর্বোচ্চ ৩৩ রান। লাঞ্চ বিরতির পরপরই ফিরে গেছেন মুমিনুল। চমৎকার ব্যাটিংয়ে আশা জাগালেও বেশিদূর এগোতে পারেননি তিনি। দলীয় ৭৮ রানে বাংলাদেশ হারায় চতুর্থ উইকেট। এবার ১২ রানে আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন লিটন দাস। চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৯৪ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলেছিলেন লিটন। কিন্তু এই টেস্টে আকিলা ধনঞ্জয়ার লাফিয়ে ওঠা বল কুশল মেন্ডিসের ধরতে কোনও অসুবিধাই হয়নি। মুশফিক-অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের উপর ভর করে দলীয় ১০০ রানে পৌঁছায় বাংলাদেশের স্কোর। তবে দলকে শতরানে নিয়ে আর টিকতে পারলেননা অধিনায়ক রিয়াদ। আউট হন ৬ রান করে। দলীয় ১০২ রানে ফিরতে হয় মুশফিককেও। তবে আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ২৫ রান। শেষ পর্যন্ত ২৯.৩ ওভারে মাত্র ১২৩ রানে থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। এর আগে ৮ উইকেটে ২০০ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামা শ্রীলংকা রোশেন সিলভার হার না মানা ৭০ রানের ওপর ভর করে দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট হয় ২২৬ রানে। আগের দিন রোশেন অপরাজিত ছিলেন ৫৮ রানে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
শ্রীলংকা প্রথম ইনিংস : ৬৫.৩ ওভারে ২২২ /১০
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৪৫.৪ ওভারে ১১০/১০
শ্রীলংকা দ্বিতীয় ইনিংস: ৭২.৫ ওভারে ২২৬/১০
বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২৯.৩ ওভারে ১২৩/১০
ফল: শ্রীলংকা ২১৫ রানে জয়ী
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: রোশেন সিলভা
ম্যান অব দ্য সিরিজ: রোশেন সিলভা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ