ঢাকা, সোমবার 12 February 2018, ৩০ মাঘ ১৪২৪, ২৫ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তাইওয়ানে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৭

১১ ফেব্রুয়ারি, সিনহুয়া : তাইওয়ানের হুয়ালিন প্রদেশে রবিবার শক্তিশালী ভূমিকম্পে আরো দুই পর্যটকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এ নিয়ে মোট নিহতের সংখ্যা ১৭ তে দাঁড়ালো। খবর সিনহুয়া।

৬ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্পের ১শ’ ঘন্টা পর এই আফটার শকে উদ্ধার দল একটি হেলে পড়া ১২ তলা বিশিষ্ট ভবনের নিচ থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করেছে।

শনিবার একই পরিবারের চার সদস্যের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মৃতদেহ দুটি একই পরিবারের বলে জানানো হয়। পরিবারটি বেইজিং থেকে তাইওয়ানে বেড়াতে এসে ওই ভবনের দোতলায় ওঠে।

উদ্ধারকারীরা জানায়, ভূমিকম্পে ১২ তলা বিশিষ্ট ভবনটির প্রথম চার তলা ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় এবং হেলে যাওয়ায় উদ্ধার কাজ দুরুহ হয়ে পড়েছে।

উদ্ধারকারী দলের সদস্য হুয়াং জানান, ভবনটির প্রথম তলা এমনভাবে হেলে পড়েছে যে দেখতে অনেকটা কয়েকটি সেন্ডুইচের মত দেখায় এবং নিচে গর্ত হয়ে গেছে। ভবনটির ছাদ, মেঝে এবং দেয়াল একসঙ্গে মুচড়ে গেছে। আমরা ভবনটি যাতে ধসে না যায় সে জন্য উদ্ধারে ভারি যন্ত্র ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করছি। উদ্ধার কাজের জন্য এক একটি দেয়াল ফুটো করতে দুই থেকে তিন ঘন্টা সময় লাগছে বলে তিনি জানান।

পরিবারটি তৃতীয় তলার যে কক্ষে আটকা পড়েছিল উদ্ধারকারীরা শনিবার সেখানে পৌঁছতে পেরেছে এবং পাঁচ জনের মধ্যে তিন লাশ উদ্ধার করতে পেরেছে। কিন্তু গতকাল রোববার উদ্ধারকারীরা পরিবারটির অপর দু’জনের দেহ ছাদের বিমে চাপা পড়া অবস্থায় দেখতে পায় এবং উদ্ধারের জন্য ছাদ ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়। ভূমিকম্পে নিহত ১৭ জনের মধ্যে চিনের নয় জন, তাইওয়ানের পাঁচ জন, ফিলিপাইনের এক জন এবং কানাডার দুইজন নাগরিক। ভূমিকম্পে ২ শ’ ৮৫ জন আহত হয়।

এর আগে তাইওয়ানের হুয়ালিন শহরে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। এতে আহত হয়েছেন দুই শতাধিক। এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছে দেড় শতাধিক।

আলজাজিরা জানায়, দ্বীপটির পূর্ব উপকূল থেকে ২১ কিলোমিটার দক্ষিণে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাত ১১টা ৫০ মিনিটে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। এতে রাস্তাঘাট ও ভবনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। একটি আবাসিক হোটেলসহ ধসে পড়েছে আরো চারটি ভবন। ধসে পড়া ভবনগুলোর মধ্যে দুটি আবাসিক হোটেল ও একটি সামরিক হাসপাতাল রয়েছে। ভবনে আটকা পড়েছে অনেক মানুষ। তাদের উদ্ধার করতে কাজ শুরু করেছেন দেশটির উদ্ধারকর্মীরা। ওই শহরে প্রায় এক লাখ মানুষ বাস করে।

আংশিক ধসে পড়া ওই দালান ও আবাসিক হোটেলগুলো থেকে ১৫০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। প্রায় ৪০ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। সেখানকার রাস্তাঘাট, ব্রিজ ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ রয়েছে। আজ বুধবার অফিস ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

তাইওয়ান সরকার উদ্ধারকাজের জন্য সেনা মোতায়েন করেছে। এ ছাড়া দেশটির সংসদ সদস্য ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে তাৎক্ষণিক উদ্ধারকাজ ও ত্রাণের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র সাই ইং-উয়েন।

তাইওয়ানের হুয়ালিন দ্বীপটি টেকটনিক প্লেটগুলোর একটি জংশনের কাছাকাছি অবস্থিত। এ জন্য সেখানে নিয়মিত ভূমিকম্প আঘাত হানে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ