ঢাকা, সোমবার 12 February 2018, ৩০ মাঘ ১৪২৪, ২৫ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খাদ্যে ভেজালের সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি বাড়ানোর উদ্যোগ

সংসদ রিপোর্টার: বিএসটিআই’র (বাংলাদেশ স্টান্ডার্ড এন্ড ট্রেনিং ইনস্টিটিউট) আইন ভঙ্গকারী ও খাদ্যে ভেজালের সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। গতকাল রোববার সংসদ অধিবেশনে লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এতথ্য জানান। বিরোধী দল জাতীয় পার্টির এ কে এম মাঈদুল ইসলামের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার ভোক্তা সাধারণের মাঝে গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিএসটিআইকে শক্তিশালী ও ক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে অত্যাধুনিক ল্যাব স্থাপনের সাথে সাথে জেলা পর্যায়ে বিএসটিআই’র কার্যক্রম সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এছাড়া বিএসটিআই’র সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ইতিমধ্যে অত্যাধুনিক কেমিক্যাল মেট্রোলজি ল্যাব স্থাপন, ভারতীয় অর্থায়নে খাদ্যদ্রব্য, স্বর্ণ, সিমেন্ট ও ইট পরীক্ষার জন্য আত্যাধুনিক ল্যাবরেটরি স্থাপন ও যন্ত্রপাতি কেনা হয়েছে। সরকারি দলের সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বিএসটিআই’র কার্যক্রম জেলা পর্যায়ে সম্প্রসারণের পাশাপাশি চট্টগ্রাম ও খুলনা আঞ্চলিক অফিসের আধুনিকায়ন ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য একটি আলাদা প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এছাড়া আরো ৪টি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। যেগুলো বাস্তবায়িত হলে বিএসটিআইয়ের কার্যক্রম সারা দেশে সম্প্রসারণ করা সম্ভব হবে। ফলে দেশে ব্যবহৃত গাড়ির টায়ার-টিউব, এলপিজি সিলিন্ডার ও নিরাপত্তার জন্য ব্যবহৃত হেলমেটের মান ও সক্ষমতা যাচাই করা সম্ভব হবে। পেট্রোলিয়াম জাতীয় দ্রবাদী পরীক্ষার জন্য একটি আন্তর্জাতিক মানের ল্যাবরেটরি প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি এর সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে বলে জানান তিনি।
আওয়ামী লীগের সদস্য আলী আজমের লিখিত প্রশ্নের জবাবে আমির হোসেন আমু জানান, জনস্বাস্থ্য ও জননিরাপত্তা বিবেচনা করে বিভিন্ন সময়ে এসআরও জারীর মাধ্যমে ১৫৪টি পণ্যতে বিএসটিআই থেকে পরীক্ষা পূর্বক সিএম সনদ গ্রহণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেউ যদি সনদ ব্যতিরেকে অবৈধভাবে বিক্রয় ও বিতরণ করে তাহলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তাৎক্ষণিক মামলা/ অর্থদ-/ কারাদ- অথবা উভয় দ-ে দ-িত করার বিধান রাখা হয়েছে। এ ধরনের অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা অথবা ৪ বছরের কারাদ-ে দ-িত করার বিধান রয়েছে। এছাড়া অবৈধভাবে উৎপাদনকৃত ও বাজারজাতকৃত ওই সকল পণ্য জব্দ বা বাজেয়াপ্ত করাও বিধান রয়েছে। সরকারি দলের সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে শিল্পমন্ত্রী সংসদে জানান, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে বিসিআইস’র মালিকানাধীন ৯টি শিল্প-কারখানা বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরমধ্যে বর্তমান সরকার ৩টি কারখনা চালু করেছে। আরো তিনটি কারখানা বিক্রি/ হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ