ঢাকা, রোববার 18 February 2018, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪, ১ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অন্ধ কল্যাণ সংস্থার খলিল হত্যায় ২ আসামির মৃত্যুদণ্ড

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সংস্থার মহাসচিব খলিলুর রহমানকে হত্যার ঘটনায় দুই জনের ফাঁসির রায় দিয়েছে আদালত।সাত বছর আগে রাজধানীর শাহ আলীবাগের জনতা হাউজিং এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড সংঘঠিত হয়।

মামলার অপর চার  আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের কারদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

ঢাকার ৪ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রইবুনালের বিচারক আবদুর রহমান সরদার সোমাবর আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করনে।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর চার আসামিকে খালাস দিয়েছেন বিচারক। মামলার তদন্ত র্কমকর্তা মিরপুর থানার সাবেক পুলিশ পরিদর্শক নিবারণ চন্দ্র বর্মন এবং তার তদারককারী পুলিশ র্কমকর্তাকে ‘অদক্ষ ও অযোগ্য’ বলে র্ভৎসনা করেছেন বিচারক।

‘ত্রুটিযুক্ত’ অভিযোগপত্র দাখিল করায় নিবারণের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশ মহাপরিদর্শক ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রায়ে।

ফাঁসির রায় পাওয়া দুই আসামির মধ্যে টিপু ওরফে হীরা কারাগারে থাকলেও রমজান আলী রমজান পলাতক। 

আর যাবজ্জীবন সাজার আসামিরা হলেন, মিনহাজ, মো. শহীদ মোস্তফা, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ও পলাতক হাসানুর  রহমান রুবেল।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, জাতীয় অন্ধ  কল্যাণ সংস্থার টাকা নিয়ে বিরোধ এবং সংগঠনের নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ২০১১ সালের ১ জানুয়ারি শাহ আলীবাগ জনতা হাউজিংয়ের ৩৩ নম্বর বাড়িতে গুলি করে হত্যা করা হয় সংগঠনের মহাসচিব খলিলুর রহমানকে।

তার স্ত্রী মোসাম্মৎ হাসিনা পারভীন পরদিন মিরপুর মডেল থানায় ১০ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ