ঢাকা, শনিবার 17 February 2018, ৫ ফাল্গুন ১৪২৪, ৩০ জমদিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অতিরিক্ত বৃষ্টির কারণে চুয়াডাঙ্গায় পিঁয়াজের আবাদ হ্রাস

চুয়াডাঙ্গা সদর সংবাদদাতা: চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে,চলতি মওসুমে চুয়াডাঙ্গায় ৮ শত ১০ হেক্টর জমিতে  পিঁয়াজ আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল।  ৫৫০ হেক্টর জমিতে পিঁয়াজের আবাদ হয়েছে।অতিরিক্ত বৃষ্টির কারনে এ জেলায় পিঁয়াজের আবাদ হ্রাস পেয়েছে।
অনুকুল আবহাওয়া ও যতাযথ পরিচর্যার কারনে চুয়াডাঙ্গায় এবার পিঁয়াজের আবাদ বেশ ভাল হয়েছে। এ অবস্থায় কোনো দুর্যোগ না হলে ভালো ফলন ও মুনাফার আশা করছেন কৃষকরা।
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বোয়ালমারী  গ্রামের মৃত : শুকুর মন্ডলের  ছেলে আবুল কাশেম (৪৮) দীর্ঘ ২০-২৫ বছর ধরে পিয়াজ আবাদ করে আসছেন। এবার তিনি ২ বিঘা জমিতে তাহেরপুরি বারি-১ জাতের পিঁয়াজ আবাদ করেছেন। তিনি জানান, এবার বীজ, সার ও পিয়াজ ঘরে তোলা পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে  বিঘা প্রতি ২০ হাজার টাকা। এখন পিঁয়াজ প্রতিমন বিক্রি হচ্ছে ১৪৫০-১৫০০ টাকায়। নতুন পিয়াজ উঠলে কিছু দাম কমতে পারে। তিনি জানান,পিঁয়াজ এ বছর খুব ভাল হয়েছে । রবি মৌসুমে বিঘা প্রতি  তার পিঁয়াজের ফলন হবে ৫০-৬০ মন হারে।
 একই গ্রামের মৃত জেহের মন্ডলের ছেলে আজিম উদ্দীন জানান আমি এ মৌসুমে এক বিঘা জমিতে চারা পিঁয়াজ লাগিয়েছি । আমার খরচ হবে ১৫০০হাজার থেকে ১৮০০হাজার টাকা । গত বছর প্রাকৃতিক দুর্যোগে পিঁয়াজের কিছুটা ক্ষতি হয়েছিল ।এবছর যদি আবহাওয়া ভাল হয় তবে পিঁয়াজ বিক্রি করে ৭০০০০ থেকে ৭৫০০০ হাজার টাকা পাব।
চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায় এ বছর দামুড়হুদা  উপজেলায় সব চেয়ে পিঁয়াজের চাষ বেশি হয়েছে ।  চলতি মৌসুমে এ জেলায় সদর উপজেলায় ১১০হেক্টর, আলমডাঙ্গায় ১৫০ হেক্টর, দামুড়হুদায় ১৭০ হেক্টর ও জীবননগর ১২০হেক্টর জমিতে পিঁয়াজ আবাদ হয়েছে। এবার চাষীরা তাহের পুরি বারি-১, বারি-২জাতের পিঁয়াজ আবাদ বেশি করেছে। পিঁয়াজ আবাদের জন্য চর এলাকায় জৈব মাটি বেশ  উপযোগী         
তাহেরপুর  বারি-১ ও বারি-২,বারি-৩ বারি-৪ জাতের পিঁয়াজ আবাদ এলাকায় বেশি হয় । খরিফ মৌসুম ১৫মার্চ থেকে ১৬ অক্টোবর এবং রবি মৌসুম ১৬ অক্টোবর ১৫ মার্চ  । বারি-১ জীবনকাল  ১২০ দিন থেকে ১৪০ দিন, উৎপন্ন হয় ৪০ থেকে ৫০ মণ , বারি-২ ও বারি-৩, বারি-৪ জীবনকাল ৯৫ থেকে ১১০ দিন ।   পিঁয়াজ প্রতি বিঘায় ৫০ থেকে ৬০মণ উৎপন্ন হয় ।
চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা যায় , পিঁয়াজ একটি অধিক উৎপাদন শীল পন্য চাষীদের উদ্বুদ্ধ করতে সরকারিভাবে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ