ঢাকা, মঙ্গলবার 20 February 2018, ৮ ফাল্গুন ১৪২৪, ৩ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ক্যালিগ্রাফি একটি স্বচ্ছ শিল্প-এর পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন বলেছেন, ক্যালিগ্রাফি একটি স্বচ্ছ শিল্প এই শিল্পের পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন। 

গতকাল সোমবার আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর তিন দিনব্যাপী অমর একুশে কর্মসূচি ১৮ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন এসব কথা বলেন। আইআইইউসি’র প্রোভিসি প্রফেসর ড. মোঃ দেলোয়ার হোসাইন’র সভাপতিত্বে অনুিষ্ঠত তিনদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালার প্রথম দিন ১৯ ফেব্রুয়ারি সকালে ছিল কুমিরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে বাংলাদেশ চারু শিল্পী সংসদের সহযোগিতায় সিম্পোজিয়াম ও বাংলা ক্যালিগ্রাফি প্রতিযোগিতা। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খ্যাতিমান শিল্পী ও কার্টুনিস্ট, বাংলাদেশ চারু শিল্পী পরিষদের সভাপতি ইব্রাহিম মন্ডল। প্রধান আলোচক ছিলেন খ্যাতিমান শিল্পী ও শিল্পতাত্ত্বিক, ঢাকা চারুকলা ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ড. আবদুস সাত্তার। নির্ধারিত আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ক্যালিগ্রাফার ও শিল্পী আবদুর রহিম এবং অরবিট ও শরীফা আর্ট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আমিরুল ইসলাম। স্বাগতঃ বক্তব্য রাখেন, স্টুডেন্ট এ্যাফেয়ার্স ডিভিশনের পরিচালক আ. জ. ম ওবায়দুল্লাহ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্টুডেন্ট এ্যাফেয়ার্স ডিভিশনের অতিরিক্ত পরিচালক কবি চৌধুরী গোলাম মাওলা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইআইইউসি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দীন বলেন, আইআইইউসি’র পক্ষ থেকে ক্যালিগ্রাফিকে পাঠ্যভুক্ত করার চেষ্টা করা হবে। মহান একুশের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাকে বিভিন্ন কোর্সে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে খ্যাতিমান শিল্পী ও শিল্পতাত্ত্বিক, ঢাকা চারুকলা ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ড. আবদুস সাত্তার বলেন, মোগল স¤্রাটরা নিজেরাই ক্যালিগ্রাফী চর্চা করতেন। ধর্ম ছাড়া শিল্পকলা বিকশিত হয়নি।। তিনি বলেন, শিল্পকলা মানুষকে সুন্দর করে। শিল্পকলা মানুষকে সুন্দরের পথে নিয়ে যায়। 

উপস্থাপিত প্রবন্ধে খ্যাতিমান শিল্পী ও কার্টুনিস্ট, বাংলাদেশ চারু শিল্পী পরিষদেও সভাপতি ইব্রাহিম মন্ডল বলেন, হযরত মোহাম্মদ (সঃ) ক্যালিগ্রাফির পৃষ্ঠপোষক ছিলেন, তিনি ক্যালিগ্রাফি চর্চাকে উৎসাহিত করেছেন। তাঁর জামাতা হযরত আলী (রাঃ) একজনক্যালিগ্রাফার ছিলেন। তিনি বলতেন ‘‘সুন্দর হস্তাক্ষর সত্যকে স্বচ্ছ করে তোলে।’’

এদিকে বাংলা ক্যালিগ্রাফি প্রতিযোগিতায় ক গ্রুপে প্রথম হয়েছে হাজেরা তজু কলেজের ছাত্র ত্বোয়াসিন আরাফাত, ২য় সাউথ এশিয়ান কলেজের ছাত্রী জয়িতা সরকার প্রীতু, এবং ৩য় একই কলেজের মৃন্ময়ী রহমান মিতু। খ গ্রুপে গ্রুপে ১ম সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার ছাত্র জামিল আহমদ, ২য় আইআইইউসি’র ছাত্রী আয়েশা সানজিদা এবং ৩য় প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ছাত্র আরিফুল সায়মন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ