ঢাকা, শুক্রবার 23 February 2018, ১১ ফাল্গুন ১৪২৪, ৬ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিজাতীয় আগ্রাসন থেকে ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠা চালাতে হবে -সাঈদা রুম্মান

 

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ মহিলা বিভাগের শিক্ষা বিভাগের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি মিলনায়তনে ‘মাতৃভাষার তাৎপর্য ও গুরুত্ব’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সালমা সুলতানার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মহিলা বিভাগের সহকারী সেক্রেটারি সাঈদা রুম্মান। প্রধান বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সেবিকা শাহীনা আক্তার, বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মহিলা বিভাগের সহকারী সেক্রেটারি মাহবুবা খাতুন শরীফা সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাঈদা রুম্মান বলেন, ভাষা আন্দোলনের চেতনা স্বাধীনতা, মানবাধিকার ও সাম্যের চেতনা। কিন্তু স্বাধীনতার এই দির্ঘ পথ অতিক্রান্ত হলেও আমরা আজও সে লক্ষ্যে পৌছাতে পারিনি। বিজাতীয় আগ্রাসনে আমাদের ভাষা ও সংস্কৃতি আজ অরক্ষিত। তাই বাংলা ভাষার মর্যাদা ও নিজস্ব সংস্কৃতি রক্ষায় আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠা চালাতে হবে। তিনি মাতৃভাষায় কুরআনের দাওয়াত সম্প্রসারণের উপর অত্যন্ত জোর দিয়ে বলেন, ইসলামের সুমহান আদর্শকে নতুন প্রজন্মের সামনে মাতৃভাষায় তুলে ধরতে হবে। তাহলে সহজেই তারা এর গুরুত্ব অনুধাবন করতে সক্ষম হবে।

প্রধান বক্তা শাহীনা আক্তার তার বক্তব্যে কুরআন হাদিসের আলোকে মাতৃভাষার গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন ভাষা আল্লাহ প্রদত্ত নেয়ামত। আদি পিতা হযরত আদম (আঃ)কে আল্লাহ ভাষা জ্ঞান দিয়ে পৃথিবীতে পাঠিয়েছিলেন। তিনি আরোও বলেন অনেক ত্যাগ ও কোরবানীর বিনিময়ে বাংলাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করা হলেও রাষ্ট্রের সকল পর্যায়ে বাংলা ভাষা চালু করা এখনও সম্ভব হয়নি। শুধুমাত্র ফেব্রুয়ারি মাস আসলেই বাংলা ভাষার মর্যাদা সম্পর্কে অনেক কথায় বলা হয়। কিন্তু ভাষার উৎকর্ষ ও বিকাশ সাধনে কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় না। তাই বাংলা ভাষাকে সর্বস্তরে যথাযোগ্য মর্যাদায় সমুন্নত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠা চালাতে হবে। মহান একুশের দিনে এই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

মাহবুবা খাতুন শরীফা বলেন, ৫২-র মহান শহীদদের রক্ত ও ত্যাগের বিনিময়ে বাংলা ভাষা রাষ্ট্রভাষা ও ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মর্যাদা লাভ করেছে। তাই ভাষা শহীদদের নাম ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে এবং জাতি তাদেরকে চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। এসময় তিনি ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং শহীদদের পরিবার-পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি ভাষার এই মাসে সকলকে আল্লাহ প্রদত্ত ও রাসুল (সা) প্রদর্শিত সিরাতুল মুস্তাকিমের পথে নিজেদের পরিচালিত করার আহবান জানান।

এছাড়াও গতকাল ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের বিভিন্ন থানা ও বিভাগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোআ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ