ঢাকা, শুক্রবার 23 February 2018, ১১ ফাল্গুন ১৪২৪, ৬ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিসিএ এর ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা  ও শহীদ দিবস’ উদযাপন

 

বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমি (বিসিএ) ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস’ উপলক্ষে গত  মঙ্গলবার, বিকেল ৪টায় বাংলামটরস্থ বিশ^সাহিত্য কেন্দ্র মিলনায়তনে  আলোচনা, ভাষার গান, আবৃত্তি, ভাষা আন্দোলনের উপর তথ্যচিত্র ও শর্টফিল্ম প্রদর্শনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সঙ্গীতজ্ঞ মুস্তাফা জামান আব্বাসী। বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি আসাদ বিন হাফিজ।  অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন একুশে পদক প্রাপ্ত কবি আল মুজাহিদী। বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমির চেয়ারম্যান মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শরীফ বায়জীদ মাহমুদ, নবধারার সেক্রেটারি গল্পকার ইবরাহিম বাহারী, সাংস্কৃতিক সংগঠক মাহফুজ চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমির সেক্রেটারি আবেদুর রহমান।

প্রধান অতিথি মুস্তাফা জামান আব্বাসী তার বক্তব্যে বলেন, ভাষা হলো মানুষের আদান প্রদানের সম্পর্ক। ভাষা শহীদরা সেই সম্পর্ক স্থাপনের জন্য জীবন দিয়েছিলেন। ভাষা আত্মার সাথে সম্পর্ক। ভাষা আত্মার বন্ধন। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষা বাংলা ভাষা, শ্রেষ্ঠ গান বাংলা ভাষার গান। বাংলা ভাষার শুদ্ধ চর্চার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি কবি আসাদ বিন হাফিজ বলেন, ভাষা আন্দোলন আমাদের অধিকার আদায়ে প্রতিবাদী হতে শিখিয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি কবি আল মুজাহিদী তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন, আরবি ভাষা যেমন আল্লাহর ভাষা পৃথিবীর সকল ভাষাও আল্লাহর সৃষ্টি। আমাদের মাতৃভাষাকে শুদ্ধভাবে শেখা ও চর্চা করতে হবে। বর্তমানে ভাষার উপর নানাভাবে আক্রমণ চলছে, তাই বাংলা ভাষাকে যথাযথভাবে চর্চাকে বেগবান করতে হবে। শরীফ বায়জীদ মাহমুদ বলেন-এফ এম রেডিওগুলো এবং কোন কোন টিভির কিছু কিছু অনুষ্ঠানমালায় বাংলা ভাষাকে টর্চার করা হচ্ছে, বাংলা ভাষার যথাযথ ব্যবহারে যতœবান হবার ক্ষেত্রে স্থায়ী নীতিমালা করার জন্য তিনি সরকারের প্রতি দাবি জানান। 

আলোচনা পর্ব শেষে শুরু হয় জমজমাট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। মুস্তাগিছুর রহমান মুস্তাকের উপস্থাপনায় এ পর্বে একে একে পরিবেশিত হয় ভাষার গান, আবৃত্তি, ভাষা আন্দোলনের উপর তথ্যচিত্র ও শর্টফিল্ম। মুস্তাগিছুর রহমান মুস্তাকের গ্রন্থনা ও নির্দেশনায় উক্তি বাচিক উৎকর্ষের শিশুরা পরিবেশন করে  ‘পলাশ ফুলের রঙ কেন লাল’ শীর্ষক মনোমুগ্ধকর কোরাস আবৃত্তি। অনুষ্ঠানে ভাষার গান গেয়ে শোনান শিল্পী লিটন হাফিজ চৌধুরী, শিল্পী ওবায়দুল্লাহ তারেক, শিল্পী মিরাদুল মুনীম, মল্লিক একাডেমি, উচ্চারণ, জাগরণ ও সন্দীপন শিল্পীগোষ্ঠী শিল্পীরা। আবৃত্তিশিল্পী সীমা ইসলাম আবৃত্তি করেন কবি কাজী নজরুল ইসলামের ফাল্গুনী কবিতা। কবি আল মাহমুদের একুশের কবিতাটি আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী সৈয়দ আল জাবের আহমেদ। আবু সাঈদ খানের রচনায় ও মনিরুল ইসলামের পরিচালনায় প্রদর্শিত হয় শর্টফিল্ম ‘আমার ভাষা আমার মান’। ভাষা আন্দোলনের উপর নির্মিত তথ্যচিত্র ‘ভাষা আন্দোলন’ প্রদর্শিত হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ