ঢাকা, মঙ্গলবার 13 March 2018, ২৯ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৪ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের আলোর পথ দেখাচ্ছে ছায়াপথ পথশিশু বিদ্যানিকেতন

সমাজের অধিকার বঞ্চিত শিশুদের প্রিয় পাঠশালা ছায়াপথ পথশিশু বিদ্যানিকেতন। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল শিক্ষার্থী ও তরুণ পেশাজীবীদের উদ্যোগে গড়ে তোলা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ছায়াপথ পথশিশু বিদ্যানিকেতন

আত্রাই (নওগাঁ) সংবাদদাতা: সমাজের অধিকার বঞ্চিত কোমলমতি শিশুদের প্রিয় পাঠশালা ছায়পথ পথশিশু বিদ্যানিকেতন। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল শিক্ষার্থী ও তরুণ পেশাজীবীদের  উদ্যোগে গড়ে তোলা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ছায়াপথ পথশিশু বিদ্যানিকেতন। সুবিধা বঞ্চিত ছিন্নমূল শিশুদের আলোর পথ দেখানোর এক উদীয়মান সূর্য। এখানে পথশিশুদের অক্ষর জ্ঞান ছাড়াও নৈতিক বিষয়ে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। অন্ধকার থেকে আলোর পথে নিয়ে আসার এ কাজটি করে যাচ্ছেন নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার  ছায়াপথ সংগঠনটি। শিক্ষাদানের পাশাপাশি বৃক্ষরোপণ, শীতবস্ত্র বিতরণ, রক্তদান, স্বাস্থ্যসেবা ও সচেতনতা বৃদ্ধিসহ আলোকিত দেশ গঠনে কাজ করে যাচ্ছেন এই তরুণেরা। আর সবই হচ্ছে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে। বৃহস্পতিবার বাদে প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে ৬টা পর্যন্ত আহসানগঞ্জ রেলস্টেশন থেকে একটু উত্তরে রেলকোলনীর খোলা আকাশের নীচে চলে এ পাঠদান। সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা আনন্দ নিয়ে পড়াশোনা করে তরুণদের উদ্যোগে চালু হওয়া এই পাঠশালায়।
১৪ জন শিক্ষক  নিয়ে ২০১৭ সালের জুলাই থেকে শুরু হয় সমাজের সুবিধা বঞ্চিত ছিন্নমূল পথ শিশুদের জন্য ব্যতিক্রমধর্মী এ পাঠশালাটির যাত্রা। এখানে বর্তমানে ৬০ জন শিশুশিক্ষার্থী পড়াশুনা করছে। এখানে যারা পড়াশুনা করছে তারা সবাই কোন না কোন কাজের সাথে জড়িত। কেউ ভিক্ষাবৃত্তি, কেউ বা বাসা বাড়িতে কাজ করাসহ এমন কী অপরাধমূলক কাজের সাথে জড়িত। এসব শিশুর জঘন্য কর্মকান্ড থেকে ফিরে আনার লক্ষ্যে এ পাঠশালার যাত্রা শুরু হয়। এখানে শিশুশিক্ষার্থীদের মায়ের মমতা ও বাবার স্নেহ দিয়ে প্রতিটি পড়ানো হচ্ছে।
শত ব্যস্ততার মাঝেও শিক্ষকরা বিকাল হলেই ছুটে আসেন খোলা আকাশের নিচে শিশুদের পাঠদান করতে। বিনা পয়সায় এ পাঠশালায় পড়াচ্ছেন তারা। এ পাঠশালা থেকেই শিশুশিক্ষার্থীদের দেয়া হয় বই খাতাসহ শিক্ষা উপকরণ। যারা এখানে পাঠদান করছেন তারাই সবাই আত্রাই মোল্লা আজাদ বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত পেশাজীবী। তারা কলেজে শেষে কেউবা প্রাতিষ্ঠানিক কাজকর্ম শেষে স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে এখানে পাঠদান করেন। এ পাঠশালায় যারা শিক্ষকতা করছেন তারা সবাই ছায়াপথ সংগঠনের  সদস্য। এখানে প্রাক-প্রাইমারি স্তরের শিক্ষা দেয়া হয়। এমনকি  অক্ষরজ্ঞান থেকে শুরু করে বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ জ্ঞান, ছবি আঁকা, গল্প কিংবা গানের আসর- সবই রয়েছে এই স্কুলটির পাঠ্য তালিকায়। এ পাঠশালার শিক্ষার্থীদের বয়স ৬ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে। অক্ষর জ্ঞান ছাড়াও এখানে নৈতিক বিষয়ে শিক্ষা প্রদান করেন শিক্ষকরা। পাঠশালাটি পড়াশুনা শুরু হয় জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে। তারপর পবিত্র কোরাআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হয় পাঠদান। শিক্ষার আলো ছড়িয়ে সমাজকে আলোকিত করাই এ সংগঠনের প্রধান লক্ষ্য। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুশিক্ষা প্রদান, মানসিক বিকাশ সাধন ও সুন্দর ভবিষ্যৎ গঠনের অনুপ্রেরণা প্রদানের উদ্দেশ্য নিয়ে এগিয়ে চলছে ‘ছায়াপথ’।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ