ঢাকা, বুধবার 14 March 2018, ৩০ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৫ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঘড়ি নষ্ট হবে না দশ হাজার বছরেও

ঘড়ি নিয়ে টেনশনে? বারবার মেরামত করতে করতে হাফিয়ে উঠছেন? তাদের জন্য সুসংবাদ। এমন ঘড়ি আসছে যেগুলো হাজার হাজার বছর সঠিক সময় দিয়ে যাবে। ভাবুন তো, ১০ হাজার বছর একটানা সঠিক সময় বলে দেবে একটি ঘড়ি। অদ্ভুত ব্যাপার তাই না?  এমন এক ঘড়ি তৈরির কাজ চলছে। উদ্যোক্তা বলছেন, ঘড়িটি ১০ হাজার বছরেও নষ্ট হবে না। বিখ্যাত অনলাইন প্রতিষ্ঠান আমাজনের উদ্যোক্তা ও সিইও জেফ বেজোস অদ্ভুত এই উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন। তিনি বিশাল এক ঘড়ি নির্মাণের কাজে বিনিয়োগ করেছেন। ঘড়ি নির্মাণে বেজোসকে খরচ করতে হচ্ছে ৪২ মিলিয়ন ডলার। এর কিছু ফুটেজ টুইটারে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সাড়া জাগে মানুষের মনে। টেক্সাসের সিয়েরা ডায়াবলো মাউন্টেনের ভেতর ৫০০ ফুট দীর্ঘ  এই বিশাল ঘড়ির নির্মাণ কাজ চলছে। প্রতিদিন দর্শনার্থীরা পাহাড়ের ভেতর ফাঁকা অংশে গিয়ে এই ঘড়ির বিশাল ঘণ্টার শব্দ শুনতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রতি ঘণ্টায় নয়, বরং প্রতিদিন একবার করে শব্দ শোনা যাবে। প্রযুক্তিবিদরা এমন উপায়ে ঘড়িটি নির্মাণ করছেন, যাতে পৃথিবীর থারমাল চক্রের মাধ্যমে শক্তি পেয়ে চলমান থাকবে ঘড়িটি। ১০ হাজার বছর ধরে ঘড়ির ঘণ্টা পৃথক শব্দ করবে, প্রযুক্তিগতভাবে সেভাবেই তৈরি করা হচ্ছে এই ঘড়ি।  ঘড়িটি নির্মাণের জন্য ১৯৮৯ সাল থেকেই ভাবছিলেন নির্মাতা ড্যানি হিলস। জেফ বেজোস এই প্রকল্পের সাথে যুক্ত হন ২০১১ সালে। ঘড়িটি স্টেইনলেস স্টিল, টাইটেনিয়াম ও সিরামিক বল বিয়ারিং দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে। পাথরের পাহাড় কেটে এই ঘড়ি নির্মাণের ব্যাপারটা মিশরের পিরামিড নির্মাণের মতো অনেকটা। হাজার হাজার বছর পর যেন মানুষ এই বিশেষ ঘড়ি দেখে সময় জানতে পারে, সেটাই মূল লক্ষ্য।

-আবু হেনা শাহরীয়া

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ