ঢাকা, বৃহস্পতিবার 15 March 2018, ১ চৈত্র ১৪২৪, ২৬ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নবাবগঞ্জে কৃষি জমিতে উন্নতজাতের আম লিচু চাষ করে লাভবান যুবক রফিকুল

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদদাতা: দিনাজপুরের শস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নবাবগঞ্জ  উপজেলা। চাপাইনবাবগঞ্জের পরে উন্নতজাতের আম লিচু চাষ করে ভাগ্যের উন্নয়নের চাকা ফিরিয়েছেন রফিকুল ইসলাম। দেশের স¦নামধন্য কলেজ থেকে মাষ্টার ডিগ্রি পাস করে গ্রামীন কৃষি ফাউন্ডেশনে কর্মরত ছিলেন রফিকুল ইসলাম। গ্রামের বাড়ি যশোর জেলার মনিপুর গ্রামে। ওই এনজিওর চাকরির সুবাদে দেশের উত্তর অঞ্চল পঞ্চগড় দিনাজপুরে দায়িত্ব পালন করেন কৃষি নির্ভরশীল ও নিরাপদ ফল উৎপাদনকারী এই যুবক রফিকুল।
দীর্ঘ অভিজ্ঞতা নিয়ে চাকরি ছেড়ে দেন তিনি। রফিকুল মনে করেন কারো অধীনে চাকরি না করে নিজেই কিছু করা যায় কিনা। এ ভেবে নিজের ভিটামাটি নেই। অন্যের জমি বর্গা ও দীর্ঘ মেয়াদি চুক্তিভিত্তিক নিয়ে উপজেলার ৮নং মাহমুদপুর ইউনিয়ন সহ ৩নং গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের রঘুনাথপুর, পতিœচান এলাকায় ৩শত বিঘা কৃষি জমি নিয়ে শুরু করেন উন্নতজাতের আম চাষের প্রকল্প। এরপর আম বাগানে সাথী ফসল হিসেবে সবজি ধান ভেড়া পালন তার প্রকল্পের অন্যতম লক্ষ্য।
চলতি বছরে আবহাওয়া আম ও লিচু চাষের অনুকুলে থাকায় ৩শত বিঘা জমিতে গাছে গাছে মুকুল দেখা দিয়েছে প্রচুর। বাগানে উৎপাদন ভাল হওয়ার জন্য সেচ সহ সার্বিক পরিচর্যায় নিবিড় সময় পার করছেন চাষী রফিকুল ইসলাম। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, যতদুর চোখ যায় আম বাগানে মৌ মৌ গন্ধে মৌমাছির আনাগোনা আর সবুজের সমারোহে প্রকৃতি যেন হাতছানি দিচ্ছে। পড়ন্ত বিকেল হলেই মুকুল থাকা গাছের উপর দিয়ে  বয়ে যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন পাখি। ফল বাগান নয় এ যেন প্রকৃতির আর এক বন্ধু। এর মাঝে বাগানে বেগুন সবজি টমেটো রসুন লাল শাক সিম মিষ্টি কদু থোকায় থোকায় ধরে আছে। তার সাথে পুরুষ ও নারী শ্রমিক প্রতিদিন বাগানে কাজ করে পরিবার পরিজন নিয়ে দিনাতিপাত করছে। নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান জানান, রফিকুল ইসলাম মানুষের জমি বর্গা নিয়ে উন্নতজাতের আম লিচু চাষ করে তার নিজের উন্নয়নের পাশাপাশি এলাকার হতদরিদ্র মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন। এলাকার অন্য বাগান মালিক শওকত আলী জানান, রফিকুলের বাগানের উন্নত আম লিচু চাষ দেখে বেকার যুবকেরা উৎসাহ পেয়ে আরো বাগান সৃষ্টি হচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আবু রেজা আসাদুজ্জামান জানান, রফিকুল ইসলাম কৃষি জমিতে আম লিচুর পাশাপাশি সাথী ফসল হিসেবে কৃষি ফসল উৎপাদন করায় তার প্রকল্পটি বড় অবদান রেখেছে। তিনি সার্বিকভাবে পরামর্শ সহ সকল ধরণের কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সহায়তা করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ