ঢাকা, শুক্রবার 16 March 2018, ২ চৈত্র ১৪২৪, ২৭ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহী নগরীর গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়নে রাসিক’র ৬০ কোটি টাকার প্রকল্প 

রাজশাহী : সিটি কর্পোরেশনের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ কাজের জন্য চুক্তি সম্পাদন করা হয় -সংগ্রাম

রাজশাহী অফিস : সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ডে ‘‘রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার উন্নয়ন’’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণ কাজের জন্য রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মীর আখতার হোসেন লিমিটেডের সাথে চুক্তি সম্পাদন গত বুধবার অনুষ্ঠিত হয়। 

এদিন সকালে নগর ভবন সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী সদর আসনের  সংসদ সদস্য জনাব ফজলে হোসেন বাদশা। অনুষ্ঠানে প্রকল্প পরিচিতি সম্পর্কিত বিস্তারিত বক্তব্য রাখেন প্রকল্প পরিচালক ও রাসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী খন্দকার খায়রুল বাশার, প্রকল্প সম্পর্কে প্রোজেক্টরের মাধ্যমে ৩০টি ওয়ার্ডের চিত্র উপস্থাপন করেন রাসিকের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল হক। প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, রাজনীতিতে ভীন্নমত থাকলেও রাজশাহীর উন্নয়নে আমরা সবাই একসাথে কাজ করছি আগামীতেও করব। সকল প্রকার রাজনীতির ঊর্ধ্বে থেকে রাজশাহীর উন্নয়নে দলমত নির্বিশেষে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। এছাড়াও তিনি রাজশাহীর উন্নয়নে একনেকে তদবীর করবেন। রাজশাহীতে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের জন্য প্রায় ৩৩ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্প পাশ হলে গোদাগাড়ীতে প্ল্যান্ট স্থাপন করে পাইপ লাইনের মাধ্যমে পদ্মা নদী হতে পানি নিয়ে এসে রাজশাহীর সিটি কর্পোরেশনসহ অন্যান্য এলাকায় পানি সরবরাহ করা হবে। ভূগর্ভস্থ্য হতে কোন প্রকার পানি উত্তোলন করা হবে না বলে তিনি জানান। এছাড়াও মানুষের হার্টের সমস্যা দূর করার জন্য রাজশাহীতে আধুনিক হার্ট ফাউন্ডেশন স্থাপন করা হবে। আগামী দুই বছরের মধ্যে এই প্রকল্পের কাজ শেষ বলে তিনি জানান। সেইসাথে রাজাশাহীকে আধুনিক ও উন্নত বিশ্বের সিটির ন্যয় সুন্দর করে গড়ে তুলতে মেয়রকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে বলে তিনি জানান এবং রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের সকল প্রকার কাজে সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন। সভাপতির বক্তব্যে মেয়র বলেন, নগরীর উন্নয়নের বিষয়ে একত্রিত থাকতে হবে। আরডিএ এর পরিকল্পনা অনুযায়ী সিটিকে সাজাতে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। আগামীতে আরো ৭ থেকে ৮টি ৬০ থেকে ৮০ ফিট প্রসস্থ মাস্টার রোড নির্মাণ করা হবে। এছাড়াও ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ রাজশাহীকে পরিকল্পিত নগরী করতে আগামী ২০৫০ সাল পর্যন্ত পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। মজবুত ও টেকসই অবকাঠামো এবং রাস্তাঘাট নির্মাণে কঠোর নীতি অবলম্বন করছেন বলে উল্লেখ করে তিনি। মেয়র আরও বলেন, লয়েস্ট সিডিউল কোন মুখ্য বিষয় নয়; অভিজ্ঞ ও নামকরা ঠিকাদারকে দিয়ে মানসম্মত কাজ করাবেন বলে মেয়র দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। সাংবাদিকরা হচ্ছেন জাতির বিবেক। তাদের মতামত এবং খবর প্রকাশের ওপর দেশের ভালো মন্দ অনেক বিষয় নির্ভর করে। সেই জন্য পত্রিকায় খবর প্রকাশ করার সময় সব কিছু জেনে বস্তুনিষ্ঠ খবর প্রকাশের জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান তিনি। বিন্দুর মোড় হতে বিমান বন্দর পর্যন্ত চার লেনের রাস্তা নির্মাণের জন্য ১৬০ কোটি টাকার প্রকল্পের এবং ১৯টি পুকুর সংস্কার করার জন্য প্রধান অতিথিকে তদবির করা জন্য অনুরোধ করেন মেয়র। এছাড়াও খেলাধুলার জন্য উন্মুক্ত মাঠ স্থাপন করা এবং সংস্কারকৃত পুকুরগুলোতে দেশী মাছ ছাড়া হবে বলে তিনি জানান। সিটি কর্পোরেশন এলাকার জনগণের স্বাস্থ্যের দিকে বিশেষ নজর রাখতে পুরো শহরকে জিরো সয়েলের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। সবুজে মোড়ানো হবে গ্রীন সিটি, ক্লীন সিটি, হেলদী সিটি ও এডুকেশন সিটি খ্যাত এই রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনকে। ইতোমধ্যে এর কাজ আরম্ভ হয়েছে। সেইসাথে আধুনিক ফুটপাত নির্মাণ, সাইকেল লেন নির্মাণ অব্যাহত রয়েছে এবং বিউটি ফিকেশন প্রকল্পের আওতায় রাতের অন্ধকারকে দিনের আলোয় পরিণত করার জন্য বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা ও মোড় এলাকায় এলইডি বাল্ব স্থাপন অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান। রাজশাহীতে খেলাধুলার মান উন্নয়ন ও বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা পরিবর্তন করার জন্য প্রধান অতিথিকে সংসদে কথা বলার আহ্বান জানান মেয়র। সেই সাথে প্রায় ৬০ কোটি টাকার প্রকল্প দুইটি প্যাকেজের মাধ্যমে বাস্তবায়নের জন্য সিটি কর্পোরেশন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মীর আখতার হোসেন লিমিটেডের সাথে চুক্তি সম্পাদন হয়। উল্লেখ্য, প্রথম প্যাকেজে ১নং ওয়ার্ড হতে ১৫নং ওয়ার্ড ও ২৭নং ওয়ার্ডসহ মোট ১৬টি ওয়ার্ডে ৮৫ টি রাস্তা নির্মাণ করা হবে। যথাক্রমে- নিউ রোড ১৪.১৭২ কিলোমিটার, ওভারলে রোড ১১.০৭ কিলোমিটার, ওয়াইডনিং রোড ২.৭০৭৯ কিলোমিটার এবং আরসিসি ড্রেন ১০.৮১৫৫ কিলোমিটার। দ্বিতীয় প্যাকেজে ১৬নং ওয়ার্ড হতে ২৬নং ওয়ার্ড এবং ২৮নং ওয়ার্ড হতে ৩০নং ওয়ার্ডসহ মোট ১৪টি ওয়ার্ডে ১০৬টি রাস্তা নির্মাণ করা হবে। যথাক্রমে- নিউ রোড ১৪.১৭৩ কিলোমিটার, ওভারলে রোড ৭.৭০৬ কিলোমিটার, ওয়াইডনিং রোড ৪.২৭৩ কিলোমিটার এবং আরসিসি ড্রেন ১০.৫৮০ কিলোমিটার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা বজলার রহমান, রাসিকের ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ বেলাল আহম্মেদ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ্ মোমিন, মীর আখতার লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ রাশেদুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্যানেল মেয়র-১ ও ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আনোয়ারুল আমিন আযব, প্যানেল মেয়র-২ ও ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নূরুজ্জামান টিটো ও প্যানেল মেয়র-৩ ও সংরক্ষিত ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোসাঃ নূরুন্নাহার বেগমসহ সকল কাউন্সিলর এবং রাসিকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ