ঢাকা, শনিবার 17 March 2018, ৩ চৈত্র ১৪২৪, ২৮ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি পারিবারিক স্কুলে পরিণত ॥ লেখাপড়া ব্যাহত

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কুড়ুলগাছি ইউনিয়নের ধান্যঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতির স্ত্রীসহ তারই পরিবারের তিনজন চাকরি করায় বিদ্যালয়টি এলাকায় পারিবারিক স্কুল নামে পরিচিতি পেয়েছে। একই পরিবারের একাধিক সদস্য চাকরি করায় লেখাপড়ার পরিবেশও ব্যাহত হচ্ছে।

জানা গেছে, ধান্যঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ধান্যঘরা গ্রামের গরীবুল্লাহর ছেলে ইমদাদুল হক। সভাপতির স্ত্রী আলেয়া, তার আপন বোন কাবিলের স্ত্রী শেফালী ও তার আপন ভাই স্বাধীনের স্ত্রী শাহিনা খাতুন বিদ্যালয়টিতে শিক্ষকতা করে আসছে। সভাপতির পরিবারের তিনজন সদস্য একই বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করায় অভিভাবক মহলসহ গ্রামে আলোচনা সমালোচনা চলে আসছে এলাকায়। অভিভাবকসহ সচেতন মহলের দাবি সভাপতির বোন না হয় অন্যের স্ত্রী কিন্তু সভাপতির স্ত্রী ও ভাইয়ের বউ কিভাবে একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে। এ বিষয়ে বিদ্যলয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জাহিদের সাথে কথা বললে তিনি জানান সরকারি কোন নীতিমালা নেই যে একই পরিবারের সদস্যরা একসাথে একটি বিদ্যালয়ে চাকরি করতে পারবে না। এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার সাকি সালামের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান এখানে সরকারিভাবে কোন নীতি মালা নেই যে সভাপতির স্ত্রী বা পরিবারের সদস্যরা একসাথে একই বিদ্যালয়ে চাকরি করতে পারবে না। যার যেখানে খুশি সে সেখানে পোস্টিং নিতে পারে এতে কোন সমস্যা নেই। 

এদিকে অভিভাবকদের দাবি শিক্ষকরা একই পরিবারের হওয়ায় লেখাপড়ার পরিবেশ ব্যাহত হচ্ছে। এতে বিভিন্ন সমস্যাও দেখা দিচ্ছে। সচেতন মহলের দাবি বিদ্যালয়টির সুনাম অক্ষুণœ রাখতে অন্ততঃ সভাপতির স্ত্রীকে অন্যত্র বদলির ব্যবস্থা করে হলেও বিদ্যালয়টিতে লেখাপড়ার পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হোক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ