ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 July 2018, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জরুরি অবস্থার মধ্যে মালদ্বীপে গণগ্রেপ্তার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: জরুরি অবস্থার মধ্যে রাজধানী মালেতে বিক্ষোভ করা এবং মিছিল নিয়ে উচ্চ নিরাপত্তা এলাকায় ঢুকে যাওয়ার অভিযোগে ১৩৯ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করেছে মালদ্বীপ পুলিশ।

চ্যানেল নিউজ এশিয়া জানায়, বিক্ষোভকারীরা দেশটির সুপ্রিম কোর্টের রায় প্রত্যাখান করে শুক্রবার সকাল থেকেই দেশটির প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিনকে গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছিল। এ সময় পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে মরিচের পানি এবং কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে।

মালদ্বীপ পুলিশের মুখপাত্র আহমেদ শিফান গণমাধ্যমকে জানান, শুক্রবার রাতে মোট ১৪১ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তারা দু’জনকে ছেড়ে দেয়।

বিরোধী দলীয় ৯ নেতাকে কারাগার থেকে মুক্ত করার আদেশ দিয়ে মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্টের সম্প্রতি এক রায় ঘোষণার পর সেই রায় কার্যকরের জন্য দফায় দফায় দাবি জানাতে থাকে বিরোধী দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। সুপ্রিম কোর্টের ওই রায়কে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক সংকট শুরু হলে গত ৫ ফেব্রুয়ারি দেশ জুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেন প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন।

কিছুদিন পর সেই জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরও ৩০ দিন বাড়িয়ে ২২ মার্চ পর্যন্ত করা হয়। জরুরি অবস্থার মধ্যে কোনোরকম মিছিল কিংবা বিক্ষোভের অনুমোদন দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে গত সপ্তাহে দেশটির সরকার ঘোষণা দেয়।

কিন্তু এর ফলে বিক্ষোভকারীরা আরও প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। তাদের অভিযোগ, প্রেসিডেন্ট আদালতের রায় না মেনে উল্টো অন্যায়ভাবে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন।

তাই তাৎক্ষণিকভাবে রায় কার্যকর করে বিরোধী দলীয় নেতাদের মুক্তি, জরুরি অবস্থা তুলে নেয়া এবং সুপ্রিম কোর্টের রায় অমান্য করার দায়ে ইয়ামিনকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে বিরোধী দল ও সমর্থকরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ