ঢাকা, সোমবার 19 March 2018, ৫ চৈত্র ১৪২৪, ৩০ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

“জমি আছে ঘর নেই” প্রকল্পের হাল

সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা) সংবাদদাতা: “জমি আছে, ঘর নেই” গৃহনির্মাণ প্রকল্পের আওতায় গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার ধাপেরহাট ইউপি সদস্য শ্রী চম্প সাহা’র বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
এ বিষয়ে সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পায়নি ভুক্তভোগীরা।
ওই অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, ধাপেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শ্রী চম্প সাহা কর্তৃক “জমি আছে, ঘর নেই” প্রকল্পের আওতায় পালানপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুসের হতদরিদ্র ছেলে রফিকুল ইসলাম ও মৃত আনছার আলীর ছেলে আবুল কালামকে ঘর বরাদ্দ দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তাদের নিকট থেকে প্রায় ছয় মাস আগে ২০ হাজার হাতিয়ে নেয়।
এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ, কথিত চম্প সাহা শুধু তাদেরই টাকা গ্রহণ করেননি।
অত্রালাকার আরও অনেক গরিব মানুষকে ঘর বরাদ্দ দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে হাজার হাজার টাকা পকেস্থ করেছে।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রফিকুল ইসলাম ও আবুল কালাম উল্লেখিত ঘটনা নিশ্চিত করে এ প্রতিবেদককে বলেন, আমরা গরিব মানুষ।
সামান্য পরিমাণে জায়গাতে ঝুঁপড়ি ঘরে বসবাস করে আসছি।
একটু ভালোভাবে থাকার জন্য শেষ সম্বল বিক্রি করে সরকারের ঘর পাওয়ার আশায় চম্প মেম্বারকে টাকা দিয়ে চরম বিপদে পড়েছি।
চম্প মেম্বারের কাছে টাকা ফেরৎ চাইলে নানা হুমকী-ধামকী প্রদর্শন করে। এ টাকা উদ্ধারের জন্য গত ২৫ ফেব্রুয়ারি উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পায়নি বলে জানান তারা। এ বিষয়ে ইউপি সদস্য শ্রী চম্প সাহা’র সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
ধাপেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম নওশা মন্ডল বলেন, এ বিষয়ে চম্প সাহাকে একাধিকবার অবগত করানো হলেও সে কোনো কর্নপাত করেনি।
সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রহিমা খাতুন বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ