ঢাকা, সোমবার 19 March 2018, ৫ চৈত্র ১৪২৪, ৩০ জমদিউস সানি ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বিলুপ্তির দাবি ঔদ্ধত্যের পরিচায়ক ------------মাও. আবদুল লতিফ নেজামী

ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুললতিফ নেজামী বলেছেন বাংলাদেশের সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বিলুপ্তি সম্বলিত ভারতের ক্যাম্পেইন এগেনস্ট এ্যাট্রাসিটিজ অন মাইনরিটিস নামের একটি সংস্থার দাবি চরম ঔদ্ধত্যের পরিচায়ক ।  তিনি বলেন, শুধু বাংলাদেশে নয়, বরং  বহু মুসলিম দেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বিদ্যমান।  আফগানিস্তান, আলজেরিয়া, বাহরাইন, ব্রুনেই, কমোরস, মিসর, ইরাক, জর্ডান, কুয়েত,  লিবিয়া, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, মরক্কো, ওমান, কাতার, সোমালিয়া, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, তিউনেসিয়ায় রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। তাছাড় ধর্মনিরপেক্ষ খ্রিষ্টান জনসংখ্যা অধ্যুষিত দেশ----যুক্তরাজ্য, পোলা-, আয়ারল্যান্ড, ইতালী, স্পেন, ডেনমার্ক, জার্মানী, সুইডেন, ফিনল্যা-, আর্জেন্টিনা, কোস্টারিকা, মাল্টা, মোনাকো, সুইজারল্যা-,  ভাটিকান সিটি, সাইপ্রাস, গ্রিস, অ্যান্ডোরা, ডোমিকান রিপাবলিক, এলসালভাদর, প্যারাগুয়ে, পেরু, পর্তুগাল, স্লোভাকিয়া, আরমেনিয়া ইসরাইল ও নেপালে স্ব-স্ব রাষ্ট্রধর্ম রয়েছে ।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক অসামাজিকভাবে জনগণের মধ্যে সৃষ্ট মতানৈক্যরফলে ও গণতান্ত্রিক দায় এবং এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের ধর্মীয় বিশ্বাস, মূল্যবোধ ও সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্যের  প্রতিফলন ঘটিয়ে সংবিধানেরাষ্ট্রধর্ম ইসলাম সংযোজন করা হয়।  জনগণের অনুভুতির কথা বিবেচনা করে অনেক ধর্মীয় মূল্যবোধকেও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার মধ্যে আনা হয়।  পৃথিবীর সব দেশেই সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক চেতনাক গুরুত্ব দেয়া হয়। এটাই গণতন্ত্রের কথা ।

পশ্চিমবঙ্গের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সংস্থাটির সম্মেলনে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপূর্ণ দাবি তোলা হয়।  তিনি বলেন বাংলাদেশ হচ্ছে পৃথিবীর মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টান্তের দেশ। তিনি নিজের চরকায় তেল দিয়ে ভারতীয় সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার বন্ধের প্রতি দৃষ্টি নিবদ্ধ করার জন্যে সংস্থাটির প্রতি দাবি জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ