ঢাকা, বুধবার 19 September 2018, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অবশেষে মারা গেলেন পাইলট আবিদ সুলতানের স্ত্রী

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: সকলকে কাঁদয়িে অবশেষে মারা গেলেন পাইলট আবিদ সুলতানের স্ত্রী আফসানা খানম পপি। (ইন্নানিল্লাহে ওয়া ইন্নাইলাইহে রাজেউন)।

বিমান দুর্ঘটনায় নিহত পাইলট স্বামীর শোকে গত রোববার ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আফসান খানম। এরপর সোমবার দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করার পর লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় মারা গেলেন তিনি।

সোমবার দুপুরে ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস অ্যান্ড হাসপাতালে তিনি মারা যান বলে প্রাথমিকভাবে জানান পাইলট আবিদ সুলতানের সহকর্মী অনিক জামান। 

অবশ্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায় সংকটপূর্ণ অবস্থায় এখনো তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।

ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস অ্যান্ড হাসপাতালের ইনফরমেশন বিভাগে ফোন দিয়ে জানা যায়, দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করার পর তাকে লাইফসাপোর্টে আনা হয়েছিল। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছেন তিনি। এখনো ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেননি। লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে তাকে।

অন্যদিকে পাইলট আবিদ সুলতানের সহকর্মী এবং কো-পাইলট অনিক জামান জানান, দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করার পর তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। সেখানে তার মৃত্যু হয়েছে। বিষয়টি এখনো সকলকে জানানো হয়নি।হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার আত্মীয়দের উপস্থিত হওয়ার জন্য বলেছেন।

এর আগে রোববার নিহত আবিদের স্ত্রী আফসানা খানম উত্তরার বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউরো সায়েন্সস অ্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভর্তি হবার পর আফসানা খানমের মাথায় একটি অস্ত্রোপচার করানো হয়।

হাসপাতালটির ইন্টারভেনশনাল নিউরোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সিরাজি শাফিকুল ইসলাম বলেন, রোববার ভর্তি হবার পর আফসানা খানমের মাথায় একটি অস্ত্রোপচার করানো হয়েছিলো। তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে আমরা পরিবারকে ব্রিফ করেছিলাম।

ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতানার পরিবারের ঘনিষ্ঠ একজন বলেন, আমরা শুনেছিলাম ওনার অবস্থা ভাল ছিলো না তাই হাসপাতাল থেকে স্বজনদের ডাকা হয়েছিলো। অস্ত্রোপচারের পর তাকে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিলো।রোববার হাসপাতাল সূত্র জানায়, আফসানা খানমের ব্রেইন স্ট্রোক হয়।

তিনি অধ্যাপক ডা. বদরুল আলমের অধীনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ভর্তির পরপরই মেডিকেল বোর্ডের সিদ্ধান্তে তার মাথায় একটি অস্ত্রোপচার করা হয়।গত ১২ মার্চ নেপালে ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনায় পাইলট আবিদ সুলতান গুরুতর আহত হন।

আবিদ সুলতান এবং আফসানা খানম দম্পতির এক পুত্র সন্তান রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৭১ জন আরোহী নিয়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের একটি উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হলে পাইলট ও উড়োজাহাজকর্মীসহ ৫১ জন প্রাণ হারান। দুর্ঘটনার পর আহত ক্যাপ্টেন আবিদকে কাঠমান্ডুর নরভিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৩ মার্চ তিনি মারা যান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ