ঢাকা, বৃহস্পতিবার 22 March 2018, ৮ চৈত্র ১৪২৪, ৩ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

“কখনো যদি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধে তবে সেটা পানি নিয়েই হবে” -ইউজিসি চেয়ারম্যান

চট্টগ্রাম অফিস : বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেছেন, বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন কখনো যদি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধে তবে সেটা পানি নিয়েই হবে। বিশ্বব্যাপী পানির অবস্থা দিনদিন খারাপ হচ্ছে। সেজন্য আমরা মানুষরাই দায়ী। চট্টগ্রামের চাক্তাই খালে এক সময় আকিয়াব বন্দর হতে পণ্যবাহী বড় বড় জাহাজ আসতো। সেই চাক্তাই খালের এখন অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাবে না। পানির বড় শত্রু ভূমিদস্যুরা। এদের পরিচয় কেবলই দখলবাজ। এরা যেখানে যা পায় তাই দখলে নিতে চায়। প্রাচীনকাল থেকেই বাংলাদেশে পানি ব্যবস্থাপনার সম্মৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। এখন সেটা পুনরুদ্ধারে আমাদের প্রকৌশলী সমাজ ও নীতিনির্ধারকমহলসহ সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।
 তিনি গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর পুর ও পানিসম্পদ কৌশল বিভাগ আয়োজিত “ন্যাশনাল কনফারেন্স অন ওয়াটার রিসোর্সেস ইঞ্জিনিয়ারিং (NCWRE-2018)” শীর্ষক দু’দিনব্যাপী এক কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
অধ্যাপক আবদুল মান্নান আরো বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনেক ভালো ভালো কাজ করে। কিন্তু এসব নিজেদের মধ্যে সীমাবদ্ধ করে রাখলে হবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে সেসব গবেষণা প্রবন্ধগুলো আপলোড করুন। দুনিায়ার সবাই জানুক এখানে কী কী কাজ হচ্ছে। পানি ও নদী বিষয়ে জানতে হলে শুধু ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করলে হবে না। সরেজমিনে এসব নদী ও খাল পরিদর্শন করে সেসবের প্রকৃত অবস্থা সর্ম্পকে জানতে হবে। এরপর সরকারের কাছে এ সংক্রান্ত সমস্যা ও সমাধানের করণীয় সর্ম্পকে দাবি জোরালো করতে হবে। চুয়েটের এই জাতীয় কনফারেন্স থেকে আমরা এ সংক্রান্ত ফলপ্রসু কিছু পাবো বলে আশাবাদী।
বিশেষ অতিথি বক্তব্যে চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, ভূ-তাত্ত্বিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশে পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর বড় একটি অংশ পানি ও পানিসম্পদের ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু বর্তমানে দখল ও দূষণের কারণে আমাদের দেশের পানি ব্যবস্থাপনা মারাত্মক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। সেক্ষেত্রে এ ধরনের কনফারেন্স দেশের নদী ও পানি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সমস্যা, সীমাবদ্ধতা ও সম্ভাব্য করণীয় বেরিয়ে আসবে। এতে করে সরকারের কাছে পানি ব্যাবস্থাপনা বিষয়ক সমস্যাবলী তুলে ধরা সম্ভব হবে। একইসাথে পানি ও নদী রক্ষার দাবিও জোরালো  হবে।
চুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের সেমিনার কক্ষে সকাল সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠিত উক্ত কনফারেন্সে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, পুরকৌশল কৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুর রহমান ভূঁইয়া। এতে সভাপতিত্ব করবেন পুর ও পানিসম্পদ কৌশল বিভাগের প্রধান এবং কনফারেন্স চেয়ার অধ্যাপক ড. আয়শা আখতার। পুরকৌশল বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শ্যামল আচার্যের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পুর ও পানিসম্পদ কৌশল বিভাগের প্রভাষক এবং কনফারেন্স সেক্রেটারি জনাব মোঃ সামিউন বাসির। উল্লেখ্য, কনফারেন্সে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদী নিয়ে ১১টি এবং হালদা নদী বিষয়ে ৪টি বিশেষ প্রবন্ধ উপস্থাপিত হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ